ব্রেকিং নিউজঃ

স্মিথের ডাবল সেঞ্চুরি, অস্ট্রেলিয়া ৪৬০/৪  ***  বিজয় দিবস উপলক্ষে স্মারক ডাকটিকেট অবমুক্ত করলেন প্রধানমন্ত্রী  ***  ইন্দোনেশিয়ায় ৭.৩ মাত্রার ভয়াবহ ভূমিকম্প  ***  টি-১০ লিগে পাঞ্জাবি লিজেন্ডসের কাছে হেরেছে সাকিব আল হাসানদের কেরালা কিংস  ***  জুম্মার নামাজের পর ইসরায়েলি সেনার গুলিতে ফিলিস্তিনি নিহত  ***  টি-১০ লিগে তামিম ইকবালের বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে পাখতুনসের জয়  ***  বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা  ***  সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে লাখো মানুষের ঢল  ***  নওগাঁয় যুবককে কুপিয়ে হত্যা, নৈশপ্রহরী আহত  ***  যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে উত্তর কোরিয়ার হুঁশিয়ারি: সমুদ্র নিষেধাজ্ঞা জারি করলে পরমাণু যুদ্ধ
Published: 7 months ago

কোমিকে বরখাস্ত করার কারণে ট্রামকে অভিশংসন করা উচিত:হার্ভার্ড প্রফেসর



হার্ভার্ডের সংবিধানিক আইনের অধ্যাপক লরেন্স ট্রাইব বলেন, এফবিআই’র সাবেক পরিচালক জেমস কোমিকে বরখাস্ত করার কারণে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রামকে অভিশংসন করা দরকার। তিনি বলেন, মি.ট্রাম্প আইনের প্রতি কোনো শ্রদ্ধা দেখাচ্ছেন না। তিনি নিজেকে আইনের উর্দ্ধে ভাবছেন। প্রফেসর লরেন্স ট্রাইব, যিনি আমেরিকার মর্যাদাশালী হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটিতে ৫০ বছর যাবৎ কর্মরত রয়েছেন।
প্রফেসর লরেন্স বলেন, গত সপ্তাহে এফবিআই এর পরিচালক জেমস কোমিকে বহিষ্কারের পর ট্রাম্পের অভিশংসন প্রয়োজন হয়ে পড়ে। কোমিকে বহিষ্কারের পর হোয়াইট হাউস মনগড়া ব্যাখ্যা প্রদান করে।

 


সরকারি কর্মকর্তাগণ ডেমোক্রেটিক সদস্যগণের অভিযোগের উত্তরে ট্রাম্পকে রক্ষা করার চেষ্টা করেন। ধারণা করা হয় যে, বিগত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারণায় রাশিয়া ট্রাম্পের পক্ষে হস্তক্ষেপ সংক্রান্ত তদন্তে এফবিআই পরিচালক কোমির ব্যক্তিগত অনুগত চেয়েছিলেন।মি. কোমি আনুগত্যতা স্বীকার করেননি। প্রফেসর ট্রাইব বলেন, “তুমি যদি প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপের তদন্ত বিষয়ে আমার প্রতি অনুগত থাকো, তবে আমরা তোমাকে ঐ পদে রাখবো, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ঐ নৈশভোজে অবশ্যি এই কথা বলেছিলেন।” প্রফেসর ট্রাইব আরও বলেন, “ন্যায় বিচারের পক্ষে এই ধরণের প্রতিবন্ধকতা ক্রিমিনাল কোডের সজ্ঞায় পড়ে।

ট্রাম্প কোমিকে তার প্রতি আনুগত্য চাওয়া সংক্রান্ত খবর অস্বীকার করেন।হোয়াইট সূত্রে কোমিকে বহিষ্কারের বিষয় ব্যাখ্যা দিয়ে বলা হয়, মি.কোমিকে বহিষ্কার করা হয়েছে সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারী ক্লিনটনের ব্যক্তিগত ই-মেইল সরকারী কাজে ব্যবহার বিষয়ে ভিন্ন ভিন্ন অবস্থানের কারণে। যদিও আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বিবৃতিতে বলেন,তিনি কোমিকে বহিষ্কার করেছেন নির্বাচনী প্রচারণাকালে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ বিষয়ে তদন্তে টানাপোড়ন সৃষ্টি হবার কারণে।

এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে এফবিসি নিউজকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, যখন আমি এই বরখস্তের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করি , তখন নিজেকে বলি শোনো ,মন শোনো, ট্রাম্পের সঙ্গে রাশিয়া এবং এই রাশিয়া হয়েছে একটি গল্প এবং“এই গল্পই” ডেমোক্রাটকে নির্বাচনে পরাজিত করেছে, যে নির্বাচনে তারা জিততে চেয়েছিল” ।টেকনিকালী অবৈধ না হলেও কোমিকে বহিষ্কারের মাধ্যমে একটি চলমান তদন্তকে লাল পতাকা দেখানো হয়েছে।প্রফেসর ট্রাইব বলেন, “মি.ট্রাম্পের এই কার্যকলাপ প্রমাণিত করে যে, “তিনি নিজেকে আইনের উর্দ্ধে ভাবছেন।”