ব্রেকিং নিউজঃ

Published: 5 months ago

সাফাতের গাড়িচালক ও দেহরক্ষী গ্রেফতার



বনানীর রেইনট্রি হোটেলে ধর্ষণের অভিযোগে দুই তরুণীর করা মামলার আরও দুই আসামিকে গ্রেফতার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। তারা হলেন- আপন জুয়েলার্সের মালিকের ছেলে সাফাত আহমেদের গাড়িচালক বিল্লাল ও তার দেহরক্ষী আবুল কালাম আজাদ।

সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর নবাবপুর রোডের ইব্রাহীম হোটেল থেকে বিল্লালকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-১০। এছাড়া গুলশান থেকে সাফাতের দেহরক্ষী আযাদকে গ্রেফতার করে ডিবি পুলিশ। এ নিয়ে মামলার পাঁচ আসামির মধ্যে চারজনকে আটক করল আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

বিল্লালকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব-১০-এর পরিচালক পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি জাহাঙ্গীর হোসেন মাতুব্বর। তিনি বলেন, মামলার ৪ নম্বর আসামি সাফাতের গাড়িচালক বিল্লালকে সন্ধ্যা ছয়টার দিকে পুরান ঢাকার নবাবপুর রোডের ইব্রাহিম হোটেল থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

অন্যদিকে আজাদকে গ্রেফতারের তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের গণমাধ্যম ও জনসংযোগ শাখার উপকমিশনার মাসুদুর রহমান। তিনি বলেন, গুলশানে গ্রেফতার ব্যক্তির নাম রহমত আলী। তিনি আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদের ছেলে সাফাত আহমেদের দেহরক্ষী। তিনি আজাদ নাম ব্যবহার করে চাকরি করতেন।

গত ২৮ মার্চ বনানীর রেইনট্রি হোটেলে সাফাতের জন্মদিনের অনুষ্ঠানে দাওয়াত দিয়ে দুই তরুণীকে ধর্ষণ করার অভিযোগ ওঠে।

ঘটনার ৪০ দিন পর গত ৬ মে এক তরুণী বনানী থানায় একটি মামলা করেন। মামলার পাঁচদিন পর ১১ মে রাতে সিলেট থেকে প্রধান আসামি সাফাত আহমেদ ও তার বন্ধু সাদমান সাকিফকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে তাদের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

দুই আসামিকে গ্রেফতারের চার দিন পর সোমবার সন্ধ্যায় আটক হলেন বিল্লাল ও আজাদ। মামলার অপর আসামি নাঈম আশরাফ এখনোও পলাতক রয়েছে।

বাংলা রিপোর্ট ডটকম/এমএকে