ব্রেকিং নিউজঃ

দুই শর্তে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় জামিন পেলেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া  ***  ক্যালিফোর্নিয়ায় হেপাটাইটিস-এ ভাইরাসে ১৯ জনের মৃত্যু  ***  পাকিস্তানে আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহত ২, আহত ৬  ***  'মিস ওয়ার্ল্ড' প্রতিযোগিতায় আজ চীন যাচ্ছেন জেসিয়া, কিন্তু কী নিয়ে যাচ্ছেন তিনি?  ***  মেসির শততম গোলে জয় পেল বার্সা  ***  অভিষেকেই ইমামের সেঞ্চুরি, দুই ম্যাচ হাতে রেখে সিরিজ জিতল পাকিস্তান  ***  যুক্তরাষ্ট্রে আবারো বন্দুকধারীর হামলা, নিহত ৩  ***  ১০৪ রানে হারল বাংলাদেশ, সিরিজ দক্ষিণ আফ্রিকার  ***  মিয়ানমারের রাখাইন বন্দরের ৭০ শতাংশ মালিকানা পাচ্ছে চীন  ***  ডি ভিলিয়ার্সের ব্যাটিং তাণ্ডব, দক্ষিণ আফ্রিকার সংগ্রহ ৩৫৩
Published: 2 months ago

গোরক্ষার যোগী বেসামাল শিশু রক্ষায়



বাংলা রিপোর্ট ডেস্ক:

ভারতের উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার আগে একটি মন্দিরের গোরক্ষায় যোগীর দায়িত্ব পালন করছিলেন উত্তরপ্রদেশের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আদিত্যনাথকে ভারতের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে এ বছরের শুরুতেই উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব দেন। কিন্তু গত চারদিনে উত্তরপ্রদেশের বাবা রাঘবদাস মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে অক্সিজেনের অভাবে ৬৩ শিশু মৃত্যুর ঘটনায় গোরক্ষার যোগী বেসামাল হয়ে পড়েছেন শিশু রক্ষায়।

 

এমন পরিস্থিতিতে বিপদের মুখে পড়েছেন যোগী সরকার। সরকারে আসার মাত্র পাঁচ মাসের মাথায়ই ঘোর বিপদে পড়লেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। এ যেন পশ্চিমবঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অসুখে ধরল তাঁকে। পশ্চিমবঙ্গে ২০১১ সালে ক্ষমতায় আসার এক মাসের মধ্যে একই ‘অসুখে’ পড়েছিলেন মমতা।

অক্সিজেনের অভাবে তিনদিনে এত শিশু-মৃত্যুর ঘটনায় দিশেহারা সরকার। বিরোধীরা ইতিমধ্যেই যোগী সরকারের পদত্যাগ দাবি করতে শুরু করে দিয়েছেন।

একই সমস্যার সম্মুখীন হয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। ২০১১ সালের জুন মাসে কলকাতার বিসি রায় শিশু হাসপাতালে ১৮ জন শিশু মৃত্যুর ঘটনা উত্তাল করেছিল রাজ্য রাজনীতি। একই বছরের অক্টোবরেও ৪০ ঘণ্টার মধ্যে ১৩ জন শিশুর মৃত্যু বিপাকে ফেলেছিল মমতাকে।

উত্তরপ্রদেশের এই ঘটনায় অভিযোগ উঠেছে, হাসপাতালের অক্সিজেন সরবরাহকারি সংস্থা বকেয়া টাকা না পেয়ে অক্সিজেন সিলিন্ডার দেওয়া বন্ধ করে দেয়। তার অভাবেই এত শিশুর মৃত্যু হয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী সিদ্ধার্থনাথ সিংহ জানান, ‘‘গত মাসেই মুখ্যমন্ত্রী এই হাসপাতাল পরিদর্শনে গিয়েছিলেন। তখন কোনও ডাক্তার বা কর্তৃপক্ষের তরফে অক্সিজেন সরবরাহের অভাবের কথা জানানো হয়নি। তদন্ত করে দোষীদের চিহ্নিত করা হবে।”

কেন বন্ধ করা হলো অক্সিজেন?

অক্সিজেন সিলিন্ডার সরবরাহকারী বেসরকারি সংস্থাটির দাবি, ৭০ লাখ টাকার সিলিন্ডার কিনে মাত্র ৩৫ হাজার টাকা মিটিয়েছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। বাকি টাকার জন্য বারবার তাগাদা দেওয়া সত্ত্বেও টাকা দিচ্ছিল না হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এ নিয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে চিঠিও দেয় ওই সংস্থা। তাদের দাবি, চিঠিতে তারা স্পষ্ট জানিয়েছে, ওই বকেয়া টাকা না দিলে তাদের পক্ষে অক্সিজেন সরবরাহ করে যাওয়া সম্ভব নয়। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ওই টাকা না পেলে অক্সিজেন সরবরাহ বন্ধ করতে তারা বাধ্য হবেন বলেও হাসপাতালকে জানানো হয়েছিল।

জেলাশাসক রাজীব রাউতেলা এ দিন সাংবাদিক বৈঠক করে জানান, বুধবার থেকে বৃহস্পতিবারের মধ্যে ২৩টি শিশুর মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত থেকে শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে আরও ৭টি শিশুর। তিনি বলেন, ‘‘টাকা বাকি থাকায় সরবরাহকারী সংস্থা অক্সিজেন বন্ধ করে দেয় বলে ওই হাসপাতালই আমাদের জানায়। তবে অক্সিজেনের অভাবে শিশুমৃত্যু হয়নি বলেই দাবি হাসপাতালের। চিকিৎসকেরা জানান, তখনকার মতো অন্য জেলা থেকে অক্সিজেন সিলিন্ডার এনে পরিস্থিতি সামলানো হয়েছে।’

গত চারদিনে ৬৩ জন শিশুর মৃত্যুর পর হাসপাতালের সুপারকে সাসপেন্ড করেছে স্বাস্থ্য দফতর৷

এদিকে ঘটনার পর বিরোধীরা স্বাস্থ্যমন্ত্রী সিদ্ধার্থনাথ সিংয়ের পদত্যাগের দাবি তোলে৷ বরিষ্ঠ কংগ্রেস নেতা গুলাম নবি আজাদ ঘটনাটিকে বেদনাদায়ক বলে উল্লেখ করেন৷ শিশুমৃত্যুর দায় সরকারের উপর চাপান তিনি৷

রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব টুইটারে অভিযোগ করে বলেন, ময়নাতদন্ত না করিয়েই শিশুদের মৃতদেহ পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে৷ কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীও শিশুমৃত্যু নিয়ে শোক প্রকাশ করে বলেন, ‘‘আমি মর্মাহত৷ বলার মতো কিছু খুঁজে পাচ্ছি না৷’’ রাহুল গান্ধী টুইট করে ঘটনায় জড়িতদের শাস্তির দাবি তোলেন৷ মৃত শিশুদের পরিবারকে সমবেদনা জানান তিনি৷

এই পরিস্থিতিতে যোগী আদিত্যনাথ কীভাবে পরিস্থিতি সামাল দেন, তার দিকে তাকিয়ে তাঁর নিজের দলের কর্মীরাই।

বাংলা রিপোর্ট ডটকম/এমএকে