ব্রেকিং নিউজঃ

Published: 4 months ago

সাইবার হামলায় যুক্তরাজ্যের হাসপাতালের রোগীর রেকর্ড বিনষ্ট হয়ে যেতে পারে



যুক্তরাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব অ্যাম্বার রুড স্বীকার করেছেন যে, সাইবার হামলায় যুক্তরাজ্যব্যপি স্বাস্থ্য সেক্টরে সংরক্ষিত রোগির রেকর্ড বিনষ্ট হয়ে যেতে পারে। অ্যাম্বার রুড বলেন,জাতীয় সাস্থ্য সেক্টরে রোগীর রেকর্ড ফাইল হারিয়ে যেতে পারে। কেননা মেডিকেল স্টাফগন টেস্ট রেজাল্টে এক্সরে ও রোগীর ফাইল বন্ধ পেয়েছেন। স্বরাষ্ট্র সচিব বলেন,এই অপ্রত্যাশিত সাইবার হামলায় স্বাস্থ্য খাতের বিনষ্ট ডাটাগুলো ফিরে পাওয়া যাবে বলে আশা করেন।
শুক্রবার বিকালে দেখা যায় যে,যুক্তরাষ্ট্র সৃষ্ট বিধ্বংশি সফট্ওয়ার হামলায় ইংল্যান্ড ও স্কটল্যাণ্ডের ৩০ স্বাস্থ্য সেবা সংগঠনের সফট্ওয়ার বিকল হয়ে পড়ে ও তখন পূর্ব সতর্ক অবস্থা হিসেবে অনেক সার্ভার বন্ধ করে দেওয়া হয়।রোগীর রেকর্ড ফিরে পাওয়া যাবে কি বিবিসির জিজ্ঞাসায় মিসেস রুড বলেন, “আমি হ্যা সূচক উত্তরে আশাবাদী কিন্তু জাতীয় স্বাস্থ্য সেবার অনেক গুরুত্বপূর্ণ সার্ভিস আক্রান্ত হয়েছে। আমাদের উচিৎ ছিল প্রতিরোধ ব্যবস্থা পূর্বে নেয়া ।”
জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা (এন এইস এস)’র প্রাক্তন চেয়ারম্যান রাই লেইলি বলেন,“দীর্ঘ সময় মাইক্রোসফট ‘র‌্যানসম’ দ্বারা আমাদের আবদ্ধ রাখে কিন্তু এন এইস এস কোন অর্থ পায়নি দাবীকৃত অর্থ পরিশোধের জন্য। আইটি সেক্টরে দীর্ঘ সময় ব্যাপী বিনিয়োগ রাখার মত অর্থ নেই।মিসেস রুড আশা প্রকাশ করে বলেন এটা খুবই হতশাজনক যে এন এইস এস ১৬ বছরের পুরানো এক্সপি ব্যাবহার করেছে আর মাইক্রোসফট যা ২০১৪সালে অফিসিয়ালি বিদায় দিয়েছে। আমরা উইন্ডোজ এক্সপি ব্যবহার করছি কিন্তু আমি জানি স্বাস্থ্য মন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন তা ব্যাবহার না করতে এবং অধিকাংশ এক্সপি পরিবর্তন করেছে।রোগীর তথ্য যদি ব্যাক্আপ রাখা যেত অধিকাংশ ক্ষেত্রে স্বাভাবিক কাজ চালানো যায়, কারণ রোগীর তথ্য সেক্ষেত্রে ডাউনলোড করে কাজ করা যায়।

স্বরাষ্ট্র সচিব বলেন,সফটওয়ার তথ্য সংরক্ষণের জন্য ভাল কোন প্লাটফর্ম নয় কারণ এক্ষেত্রে ভাইরাসের বিরুদ্ধে কোন রক্ষামূলক ব্যবস্থা নেয়া যায় না।এন এইস এস রাষ্ট্রকে তাদের প্লাটফর্ম পরিবর্তনের পরামর্শ দেন। মিসেস রুড তিনি বিবিসি প্রেগ্রামকে বলেন,উইন্ডোজ এক্স পি তথ্য সংরক্ষণর কোন ভাল প্লাটফর্ম নয় কারণ এ পদ্ধতিতে ভাইরাসের বিরুদ্ধে প্রতিরক্ষার এন্টিভাইরাস ডাউনলোড করা যায় না।
সি কিউ সি (কেয়ার কোয়ালিটি কমিশন) যখন হাসপাতাল পরিদর্শন করেন, তখন তারা এনএইসএস ট্রাস্টের সাইবার পরীক্ষা করেন না।
তাদেরকে পরামর্শ দেয়া হচ্ছে যে, তারা এন এইচ এস ট্রাস্টকে তাদের প্লাটফর্ম আধুনিকায়ণ করতে বলবেন এবং আমি মনে করি এই অভিজ্ঞতার পর সকলেই পদ্ধতির আধুনিকায়ণে অগ্রগামী হবেন।
মিসেস রুড বলেন,কারা এই সাইবার হামলাকারী,কোথা থেকে তাদের উৎপত্তি এবং কোথা থেকে পরিচালনা করা হচ্ছে তা চিহ্নিত করার কাজ চলছে ।
দ্য ইণ্ডেপেন্ডেন্ট অবলম্বনে/
রেজা আফসারী।