ব্রেকিং নিউজঃ

Published: 3 months ago

চিকুনগুনিয়া ঠেকাতে ছাড়া হচ্ছে ২ কোটি মশা



সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রে জিকা, ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়ার ভাইরাস বহনকারী এডিস মশার উৎপাত ঠেকাতে ছাড়া হচ্ছে ব্যাকটেরিয়াযুক্ত ২ কোটি পুরুষ মশা।

 

 

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার ফ্রেসনো’তে এই মশা ছাড়বে দেশটির একটি শীর্ষ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান। খবর ব্লুমবার্গের।

 

 

তবে মশা ছাড়ার কারণে ভয় পাবার কোনো কারণ নেই বলে আশ্বস্ত করেছে প্রতিষ্ঠানটি।
মশা ছাড়ার এ উদ্যোগ মার্কিন প্রযুক্তি জায়ান্ট অ্যালফাবেট-এর ভেরাইলি লাইফ সায়েন্সেস বিভাগের একটি পরিকল্পনার অংশ।

 

 

 
খবরে বলা হয়েছে, পুরুষ মশাগুলোর শরীরে এক প্রকার বিশেষ ব্যাকটেরিয়া যুক্ত করে দেয়া হচ্ছে। এই মশা মানুষের জন্য ক্ষতিকর নয়। এরা বন্য স্ত্রী মশার সঙ্গে প্রজননের পর বংশবিস্তারে সক্ষম নয় এমন ডিম সৃষ্টি করবে। এর মাধ্যমে মশার সংখ্যা ও এগুলোর মাধ্যমে রোগের সংক্রমণও কমবে বলে আশা করা হচ্ছে।

 

 

ভেরাইলি’র প্রধান প্রকৌশল কর্মকর্তা লিনাস আপসন বলেন, ‘আমরা যদি দেখাতে পারি যে এই কৌশল কাজ করছে, আমার বিশ্বাস আমরা এটিকে একটি টেকসই ব্যবসায় পরিণত করতে পারব। কারণ এই মশার বোঝাটা বিশাল।’
ভেরাইলি মশাগুলোর জীনগত কোনো পরিবর্তন আনেনি। এগুলো ওলব্যাকিয়া নামের প্রাকৃতিকভাবে সৃষ্ট একটি ব্যাকটেরিয়ায় আক্রান্ত। এই আক্রান্ত পুরুষ মশাগুলো যখন বন্য স্ত্রী মশার সঙ্গে মিলিত হবে, তারা বাচ্চা জন্মদানে অক্ষম ডিম সৃষ্টি করবে। এর ফলে সময়ের সঙ্গে মশার সংখ্যা কমে আসবে। এক্ষেত্রে বাড়তি সুবিধা হচ্ছে পুরুষ মশা মানুষকে কামড়ায় না।

 

 

 

 

ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের ফ্রেসনো এলাকায় প্রকল্পটি পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। ভেরাইলি তিনশ’ একরের দুটি এলাকায় প্রতি সপ্তাহে ১০ লাখ করে ২০ সপ্তাহ ধরে মশা ছাড়ার পরিকল্পনা করেছে।

 

 

ভেরাইলি ছাড়াও অন্যান্য প্রতিষ্ঠান রোগ নিয়ন্ত্রণে এই ব্যাকটেরিয়া আক্রান্ত মশা ব্যবহার করে থাকে। বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনের মতো প্রতিষ্ঠানগুলো এক দশকের ও বেশি সময় ধরে পোকা মাকড় নিয়ে এমন কাজ করছে।

 

বাংলা রিপোর্ট ডটকম/এএইচ