ব্রেকিং নিউজঃ

বঙ্গোপসাগরে বছরের সর্বোচ্চ জোয়ার, উচ্চতা সাড়ে ১০ ফুট  ***  নয়া অ্যাকশনে মোস্তাফিজ  ***  অস্ত্রবিরতি সত্ত্বেও সিরিয়ার বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত শহরে হামলা, নিহত ৮  ***  আগামিকাল বুধবার থেকে পবিত্র জিলক্বদ মাস গণনা শুরু  ***  পাকিস্তানকে অত্যাধুনিক হেলিকপ্টার দিলো রাশিয়া  ***  ভারতের ১৪তম রাষ্ট্রপতি হিসেবে আজ শপথ নিচ্ছেন রামনাথ কোবিন্দ  ***  কক্সবাজারে প্রবল বর্ষণে পাহাড় ধস : নিহত ৪, আহত ৫ জন  ***  সারাদেশে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমের তথ্য সংগ্রহ শুরু, চলবে ৯ আগস্ট পর্যন্ত  ***  ভারতের গুজরাটে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, সরিয়ে নেয়া হয়েছে ২৫ হাজার মানুষকে  ***  ঢাকায় জেলা প্রশাসক সম্মেলন শুরু হচ্ছে আজ
Published: 3 months ago

এরশাদকে খালাস দিয়েছে হাইকোর্ট



বিভিন্ন উপহার সামগ্রী রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা না দেয়ার অভিযোগ আনা মামলায় নিম্ন আদালতের দেয়া তিন বছরের সাজা বাতিল করে সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাপা চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে খালাস দিয়ে মঙ্গলবার রায় ঘোষণা করেছে হাইকোর্ট।

নিম্ন আদালতের সাজার বিরুদ্ধে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের করা আপিল গ্রহণ করে বিচারপতি মো. রুহুল কুদ্দুস ও বিচারপতি ভীষ্মদেব চক্রবর্তীর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের একটি ডিভিশন বেঞ্চ মঙ্গলবার এ রায় ঘোষণা করে।

রায় ঘোষণার সময় আদালতে দুদকের পক্ষে আইনজীবী খুরশিদ আলম খানও এরশাদের পক্ষে অ্যাডভোকেট শেখ সিরাজুল ইসলাম এবং রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল নজিবুর রহমান।

গত ১২ এপ্রিল হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের করা আপিলের শুনানি শেষে রায়ের জন্য ৯ মে দিন ধার্য ছিলো। গত ৩০ মার্চ এ মামলায় সাজা বৃদ্ধি চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষের করা আপিলে পক্ষভুক্ত হয় দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

গত বছরের ৩০ নভেম্বর দীর্ঘ ২৪ বছর পর দুর্নীতি মামলায় সাজার বিরুদ্ধে এরশাদের আনা আপিলের ওপর শুনানি শুরু হয়। ১৯৮৩ সালের ১১ ডিসেম্বর থেকে ১৯৯০ সালের ৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত রাষ্ট্রপতি থাকাকালে বিভিন্ন উপহার রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা না দেয়ার অভিযোগেএরশাদের বিরুদ্ধে ১৯৯১ সালের ৮ জানুয়ারি তৎকালীন দুর্নীতি দমন ব্যুরোর উপ-পরিচালক সালেহ উদ্দিন আহমেদ রাজধানীর সেনানিবাস থানায় মামলাটি করেন। মামলায় ১ কোটি ৯০ লাখ ৮১ হাজার ৫৬৫ টাকা আর্থিক অনিয়মের অভিযোগ আনা হয়। এ মামলায় ১৯৯২ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি ঢাকা বিভাগীয় বিশেষ জজ আদালতের রায়ে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের তিন বছরের সাজা হয়। একই সঙ্গে ওই অর্থ ও একটি টয়োটা ল্যান্ডক্রুজার গাড়ি বাজেয়াপ্ত করারও নির্দেশ দেয়া হয়। এ রায়ের বিরুদ্ধে এরশাদ ১৯৯২ সালে হাইকোর্টে আপিল করেন। আদালত আপিল গ্রহণ করে রায়ের কার্যকারিতা স্থগিত করেন ও নিম্ন আদালতের নথি তলব করে।

সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদ বর্তমানে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূতের মর্যাদায় রয়েছেন। এছাড়াও তিনি এখন সংসদ সদস্যও।

 

বাংলা রিপোর্ট ডটকম/এমএকে