ব্রেকিং নিউজঃ

Published: 7 months ago

জামিন পেলেন ক্রিকেটার আরাফাত সানি



ক্রীড়া ডেস্ক:

গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির একদিনের মাথায় যৌতুকবিরোধী আইনে করা মামলায় আত্মসমর্পণ করে জামিন নিলেন জাতীয় দলের ক্রিকেটার আরাফাত সানি।
আজ সোমবার বেলা ১১টার পরে তিনি ঢাকা মহানগর হাকিম জাকির হোসেন টিপুর আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। শুনানি শেষে আদালত আরাফাত সানির জামিন মঞ্জুর করেন।
গতকাল রোববার আরাফাতের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। যৌতুক নিরোধ আইনে তাঁর স্ত্রী বলে পরিচয় দেওয়া এক তরুণী গত ২০ জানুয়ারি এ মামলা করেন।
এদিন আদালতে সানির বিরুদ্ধে নাসরিন আক্তারের যৌতুকের জন্য নির্যাতনের মামলার অভিযোগ (চার্জশিট) গঠন করা হয়।

 

সানির আইনজীবী মুরাদুজ্জামান বলেন, আরাফাত সানী চিকুনগুনিয়ায় আক্রান্ত। এজন্য তিনি অভিযোগ শুনানির ধার্য দিন গতকাল রোববার আদালতে হাজির হতে পারেননি। আদালত তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন। গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির বিষয়ে অবগত হয়ে আরাফাত সানী আজ আত্মসর্পণ করে জামিন চান। বিজ্ঞ আদালত তাকে জামিন দেন।
মামলার এজাহারে নাসরিন সুলতানা অভিযোগ করেন, ৭ বছর আগে পরিচয় সূত্রে আমাদের ঘনিষ্ঠতা হয়। এক পর্যায়ে দু’জন ভালোবেসে পরিবারকে না জানিয়ে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হই।
কিন্তু বিয়ের তিন বছরেও সানী দুই পরিবারের সঙ্গে আলাপ করে আনুষ্ঠানিকভাবে তুলে নেননি। বারবার এ বিষয়ে চাপ দিলেও তিনি কালক্ষেপণ করেন।
গত বছরের মাঝামাঝি সময়ে নাসরিন সুলতানাকে বিয়ে দেয়ার জন্য তার পরিবার পাত্র খোঁজা শুরু করে। ওই সময় তাদের বিয়ের বিষয়টি সবাইকে জানিয়ে তুলে নেয়া অথবা বিবাহ বিচ্ছেদের মাধ্যমে সম্পর্ক ছিন্ন করার জন্য আরাফাত সানিকে অনুরোধ জানান নাসরিন।
এজাহারে আরও উল্লেখ করা হয়, ‘গত বছরের ১২ জুন রাতে ১টা ৩৫ মিনিটে নাসরিন সুলতানা নামের একটি ফেসবুক ফেইক আইডি থেকে নাসরিনের আসল ফেসবুক মেসেঞ্জারে সানী-নাসরিনের অন্তরঙ্গ মুহূর্তের কিছু ছবি পাঠানো হয়। ওই ফেইক আইডিটি আরাফাত সানির ব্যক্তিগত মোবাইলফোন নম্বর থেকে খোলা হয়েছিল এবং ওই ছবিগুলো শুধু সানির কাছেই ছিল।
বাংলা রিপোর্ট ডটকম/এইচএম