ব্রেকিং নিউজঃ

Published: 3 months ago

আগুন ঝরানো ফাইনালে পাকিস্তান সম্পর্কে সচেতন ভারত



চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে আগামীকাল মুখোমুখি হচ্ছে উপমহাদেশের দুই দল ভারত-পাকিস্তান। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ভারত এ ম্যাচে ফেবারিট হিসেবে মাঠে নামবে। তবে আগুন ঝরা ফাইনালে তারা হয়তোবা চিরপ্রতিদ্বন্দি পাকিস্তানের চেয়ে ভিন্নধর্মী একটি প্রতিপক্ষকে আশা করছে।

 

পার্শ্ববর্তী দেশ দুটির মধ্যে বছরের পর বছর ধরে রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব চলে আসছে। তবে বিশ্ব জুড়ে লক্ষ কোটি সমর্থক ২০০৭ টি-২০ বিশ্বকাপ ফাইনালের দশ বছর পর প্রথমবারের মত বড় একটি টুর্নামেন্টের চূড়ান্ত দল হিসেবে ভারত-পাকিস্তানকে দেখতে পাবে।
এমনিতে আনপ্রেডিক্টেবল দল হিসেবে পরিচিত পাকিস্তান। র‌্যাংকিংয়ে সবার নিচে থেকে টুর্নামেন্ট শুরু করা পাকিস্তান নিজেদের প্রথম ম্যাচে এই ভারতের কাছেই লজ্জাজনকভাবে পরাজিত হয়। যেমনটা অতীতে বহুবার ঘটেছে। তবে হঠাৎ করইে নিজেদের ফর্ম ফিরে পেয়ে গ্রুপ পর্বে র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষ দল দক্ষিণ আফ্রিকা ও শ্রীলংকাকে হারিয়ে সেমিফাইনালে ওঠে। শেষ চার-এ অলরাউন্ড নৈপূণ্য দেখিয়ে গ্রুপ পর্বে অপরাজিত থাকা ইংল্যান্ডকে কোন প্রকার পাত্তা না দিয়ে একতরফা ম্যাচে বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে সবার আগে ফাইনাল নিশ্চিত করে।
পক্ষান্তরে সেমিফাইনালে বাংলাদেশকে হারানোর আগে গ্রুপ পর্বে শ্রীলংকার কাছে পরাজিত হওয়া ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি পাকিস্তানের পুনরুত্থানে উদ্বুদ্ধ। তিনি বলেন, ‘তাদের এ ঘুড়ে দাঁড়ানো যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ। ফাইনালে পৌাঁছাতে হলে অবশ্যই আপনাকে ভাল ক্রিকেট খেলতে হবে এবং তাদেরকে কৃতিত্ব দিতে হবে। সত্যিই তারা ভাল ভাবে ঘুড়ে দাঁড়িয়েছে।’
তিনি আরো বলেন, ‘তারা মাঠে যেভাবে দলগতভাবে নৈপূণ্য দেখিয়েই ফাাইনালে এসেছে সেটা অবশ্যই চ্যালেজ্ঞিং। তারপর তাদের মানসিকতায়ও পরিবর্তন এসেছে।’
দশ বছর আগে টি-২০ বিশ্বকাপ ফাইনালে পাকিস্তানকে ৫ রানে হারিয়ে শিরোপা জয় করা ভারতের বিরাট কোহলি, শিখর ধাওয়ান এবং রোহিত শর্মা অসাধারন ব্যাটিং ছন্দে আছেন। কোহলি বলেন, ‘তাদের শক্তি ও দুর্বলতা জেনে আমরা এ পর্যন্ত যে ধরনের ক্রিকেট খেলেছি তারই পুনরাবৃত্তি করার চেষ্টা করছি। দলগতভাবে আমরা যেভাবে খেলছি তাতে খুব বেশি পরিবর্তন আনা প্রয়োজন আছে বলে আমি মনে করিনা। নির্দিষ্ট দিনে আমাদের ফোকাস, দক্ষতা, সক্ষমতা এবং নিজেদের আত্মবিশ্বাসের প্রতি নজর দেয়াটাই যথেষ্ট।’
মন্থর গতির উইকেটে কার্ডিফের সেমিফাইনালে শক্তিশালী ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দলের সেরা ফাস্ট বোলার মোহাম্মদ আমিরকে ছাড়াই বোলিং ও ফিল্ডিংয়ে দারুন নৈপূণ্য দেখিয়েছে ভারত। পক্ষান্তরে আগামীকাল ওভালের পিচ অনেকটাই ব্যাটসম্যান সহায়ক হবে। তথাপি ইতোপূর্বে বিশ্বকাপ ও চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ১০ ম্যাচের মধ্যে পাকিস্তানকে আট ম্যাচ হারানো ভারত কোন প্রকার আত্মতুষ্টিতে ভুগবে না।
কোহলি বলেন, ‘সত্যিকারার্থেই কিছু বিস্ময়কর ফল আমরা অতীতে দেখেছি। এমন কিছু দেখাটা উভয় দেশের খেলোয়াড় ও সমর্থকদের জন্যই অসাধারণ কিছু। আমরা কিছু ভাল ক্রিকেট খেলেছি। তবে কোন কিছুরই নিশ্চয়তা নেই।
পক্ষান্তরে ওপেনার ফখর জামান, অভিজ্ঞ আজহার আলী এবং বোলার হাসান আলী ও জুনাইদ খানের নৈপূণ্যে ফাইনালে পৌঁছেছে পাকিস্তান।
পাকিস্তান অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ বলেন, তারা উদ্বোধনী ম্যাচে ভারতের কাছে পরাজয় দ্রুতই ভুলে গেছেন এবং এখন তাদের একমাত্র লক্ষ্য প্রথমবারের মত চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির শিরোপা জয় করা।
তিনি বলেন, ‘ভারত ম্যাচের পর আমরা শুধুমাত্র ছেলেদের উদ্বুদ্ধ করেছি। ভারত ম্যাচ নিয়ে দুশ্চিন্তা করো না। এটা চলে গেছে। ভাল ক্রিকেট খেললে অবশ্যই আমরা এ টুর্নামেন্টের শিরোপা জিতব।’
চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ভারতের বিপক্ষে নিজেদের ইতিহাস বদলে দিতে পাকিস্তান প্রস্তুত বলে জানান আজহার।
খবর বাসস।
বাংলা রিপোর্ট ডটকম/এএইচ