ব্রেকিং নিউজঃ

পথে পথে ভোগান্তি আর ঝুঁকি মেনেই নাড়ির টানে ছুটছে মানুষ , সড়ক-মহাসড়কে যানবাহনের ধীরগতি : লঞ্চে অতিরিক্ত যাত্রী  ***  সহায়ক সরকারের একাধিক ফর্মূলার আভাস বিএনপির : শেখ হাসিনার অধিনে নির্বাচনের বিষয়ে একচুলও ছাড় দিতে নারাজ আওয়ামী লীগ  ***  সৌদি আরবে শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেছে, আগামীকাল সৌদিসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে উদযাপন হবে ঈদুল ফিতর *** বাংলাদেশে পবিত্র ঈদুল ফিতরের তারিখ নির্ধারণের লক্ষ্যে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভা রোববার অনুষ্ঠিত হবে  ***  কাবা মসজিদে সন্ত্রাসী হামলা পরিকল্পনা নস্যাৎ করেছে সৌদি আরব  ***  আজীবন নিষিদ্ধ অভিনেতা শাকিব খান: চিত্রপরিচালক গুলজারের পদত্যাগ  ***  ঈদ করতে ট্রাকের ছাদে বাড়ি ফেরা, নিহত ১৬  ***  পাটুরিয়ায় ফেরি পারাপারের অপেক্ষায় ৪ শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক  ***  একসঙ্গে ৩১ কৃত্রিম উপগ্রহ উৎক্ষেপণ করল ভারত  ***  আফগানিস্তানের হেলমান্দে জঙ্গি হামলায় নিহত ৩৪  ***  বাগদাদীকে হত্যা করা হয়েছে প্রায় ১০০ শতাংশ নিশ্চিত : রাশিয়া

পর্তুগালে আগুনে পুড়ছে বন: নিহত ৬২, তিন দিনের রাষ্ট্রীয় শোক



বাংলা রিপোর্ট, আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

পর্তুগালের সরকারি সূত্রে বলা হয়েছে যে, শনিবার থেকে মধ্য পর্তুগালের বন সমানে পুড়ছে এবং কমপক্ষে ৬২ জন নিহত হয়েছে। খবর রয়টার্স।

 

রবিবার সরকারি সূত্রে বলা হয়, আটলান্টিকের উপকূলীয় এই রাষ্ট্রে সবচেয়ে ভয়াবহ এই দাবানল প্রতি গ্রীষ্মে দেশটিতে বন কাঠ পুড়ে বেশুমার হয়।

 

রাজধানী লিসবন থেকে ২০০ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বের পেড্রোগাও গ্রান্ডি পার্বত্য এলাকায় পৌঁছে পর্তুগালের প্রধানমন্ত্রী এন্টোনিও কস্টা বলেন, ‘আগুনের ভয়াবহতা এতই ব্যাপক যে, স্মরণকালে আমরা এমন মানবিক বিপর্যয় দেখিনি।’

 

তিনি বলেন, প্রবল বাতাসে আগুনের প্রচণ্ড ফুলকার মধ্যে আমরা নতুন করে আগুন ছড়িয়ে পড়া রোধে কাজ করছি। তবে আগুনে মৃত্যুর সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে সতর্ক করেন তিনি।

 

এদিকে, আগুনে নিহতদের স্মরণে দেশটি তিন দিনের রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা করেছে। সেইসঙ্গে জরুরি বিভাগকে সহায়তার করার জন্য দুটি সেনা ব্যাটালিয়ন ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে।

 

কর্তৃপক্ষ বলেছে, ইউরোপীয় ইউনিয়ন দুটি ফায়ার ফাইটিং বিমান পাঠানোর কথা বলেছে। এ ছাড়া ফ্রান্স তিনটি বিমান পাঠানোর প্রস্তাব দিয়েছে। আর স্পেন ইতোমধ্যে দুটি বিমান পাঠিয়েছে।

 

সাপ্তাহিক বক্তৃতায় পোপ ফ্রান্সিস, ‍যিনি গত সপ্তাহে পর্তুগাল সফর করেন, দাবানল সম্পর্কে বলেন, ‘আমি পর্তুগালের ওইসব মানুষের খুব কাছের যারা পেড্রোগাও গ্রান্ডির আশপাশের বনে দাবানলে হতাহত হয়েছেন। আসুন আমরা তাদের জন্য প্রার্থনা করি।’

 

ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন এক টুইট বার্তায় বলেছেন, ‘ভয়াবহ আগুনে ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতি আমরা সমবেদনা জানাচ্ছি। তাদের সঙ্গে আমরা আছি। ফ্রান্সকে সাহায্যের জন্য আমারা সর্বদা প্রস্তুত।’

 

ইউরোপিয়ান কমিশনের ত্রাণ প্রধান খ্রিস্টোস স্টিলিয়ানিডস এক বার্তায় বলেছেন, ‘এই মুহূর্তে পর্তুগালের জনগণের জন্য যা দরকার তার জন্য সবাই সহযোগিতা করবে।’

 

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জর্জ গোমেজ মৃত্যুর খবর প্রকাশ করেন। শনিবার প্রাথমিকভাবে ১৯ জনের মৃত্যুর খবর প্রকাশ হলেও তা দ্রুত বেড়ে যায়। গোমেজ বলেন, অধিকাংশ মানুষ রাস্তায় গাড়িতে আগুন ধরে মারা যায়।

 

রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন আরটিপি নডেরিনহো গ্রামের ভিডিও ফুটেজ দেখিয়েছে, যেখানে ১১ জন বাসিন্দা মারা গেছে এবং গাড়ি ও বাড়ি-ঘর পুড়ে কালো হয়ে গেছে। ভয়ার্ত মানুষরা জানান, লোকজন জীবন বাঁচাতে পরিবারের সদস্যরা মিলে গাড়ি করে পালানোর চেষ্টা করে, কিন্তু আগুন তাদের দিকে টর্নেডো গতিতে ছুটে আছে এবং তারা পুড়ে মারা যায়।

 

বাংলা রিপোর্ট/মসি খাঁ