ব্রেকিং নিউজঃ

Published: 4 months ago

লন্ডনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় বিক্ষোভকারীদের টাউন হল ঘেরাও



বাংলা রিপোর্ট ডেস্ক:

লন্ডনের আবাসিক ভবনে অগ্নিকাণ্ডে এ পর্যন্ত অন্তত ৩০ জনের মৃত্যু এবং আরও অন্তত ৭০ জন নিখোঁজ থাকার ঘটনায় সেখানে তীব্র বিক্ষোভ জানানো হচ্ছে।

 

নিখোঁজদের পরিবারের সদস্যরা অভিযোগ করছেন, কর্তৃপক্ষ তাদের কোনো তথ্য দিয়েই সহযোগিতা করছেন না।

 

গতকাল লন্ডনের মেয়র সাদিক খানও ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের ক্ষোভ এবং প্রশ্নবানের মুখে পড়েছিলেন। বহু মানুষ নিহত হওয়ার ঘটনায় সেখানে আজ ক্রুদ্ধ বিক্ষোভকারীরা স্থানীয় টাউন হল ঘেরাও করেছে।

 

আমরা উপযুক্ত ন্যায়বিচার চাই শ্লোগান দিতে দিতে কয়েকশ’ বিক্ষোভকারী এক পর্যায়ে ‘কেনসিংটন এন্ড চেলসী’ টাউন হলের ভেতর ঢুকে পড়েন। সেখান থেকে পুলিশ অন্তত একজন বিক্ষোভকারীকে গ্রেফতার করেছে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে।
এই অগ্নিকাণ্ডের পর থেকে কাউন্সিল কর্তৃপক্ষ এবং ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী টেরেজা মের সরকারের তীব্র সমালোচনা চলছিল এই বলে যে তারা ঘটনার গুরুত্ব অনুযায়ী বিভিন্ন পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হয়েছে।

 

প্রধানমন্ত্রী থেরিজা মে গতকাল ঘটনাস্থলে গেলেও ঘটনার শিকার হওয়া ব্যক্তি বা তাদের পরিবারের সঙ্গে সাক্ষাৎ না করায় তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েন।

 

এর পর প্রধানমন্ত্রী আজ আবার একটি হাসপাতালে গিয়ে অগ্নিকাণ্ডে আহত চিকিৎসাধীনদের দেখতে যান।

 

কেনসিংটন এলাকার পরিস্থিতিতে সাংবাদিকরা ‘অগ্নিগর্ভ’ বলে বর্ণনা করছেন। সেখানে অনেক পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছে।

 

কিভাবে এত দ্রুত আগুন ছড়িয়ে পড়ে লন্ডনের মতো একটি ২৪ তলা ভবনে এত মানুষের মৃত্যু ঘটতে পারলো, তা নিয়ে অনেক প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

 

লন্ডন সরকার এই ঘটনার একটি প্রকাশ্য তদন্তের ঘোষণার তাগিদ দিয়েছে ।

বাংলা রিপোর্ট ডটকম/এম/এম.