ব্রেকিং নিউজঃ

Published: 4 months ago

রাঙামাটিতে বিশ্ব রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট দিবস উদযাপিত



রাঙামাটি প্রতিনিধি
রেড ক্রস, রেড ক্রিসেন্ট ‘সর্বত্র, সবার জন্য’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে বিশ্বের অন্যান্য দেশের ন্যায় সোমবার রাঙামাটিতেও বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বিশ্ব রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট দিবস উদযাপিত হয়েছে।
সকাল ৯টায় রাঙ্গামাটি রেড ক্রিসেন্ট ইউনিট ভবনের সামনে জাতীয় ও রেড ক্রিসেন্ট পতাকা উত্তোলনের মধ্যদিয়ে দিনের কর্মসূচি শুরু হয়।
দিবসটি উপলক্ষে সকাল সাড়ে ৯টায় রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক কার্যালয় প্রাঙ্গণ থেকে সোসাইটির সভাপতি ও রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমার নেতৃত্বে ব্যানার, পতাকা, ফেস্টুন ও প্লেকার্ডসহকারে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়ে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে জেলা শিল্পকলা একাডেমীতে গিয়ে শেষ হয়ে আলোচনাসভায় মিলিত হয়।
বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি রাঙ্গামাটি ইউনিটের সভাপতি ও রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের চেয়ারম্যান জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় সন্তু লারমা। বিশেষ অতিথি ছিলেন রাঙ্গামাটি পৌর মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি রাঙ্গামাটি ইউনিটের ভাইস প্রেসিডেন্ট সাইফুল ইসলাম ভুট্টো, সোসাইটির আজীবন সদস্য মুক্তিযোদ্ধা মনিষ দেওয়ান প্রমুখ।
স্বাগত বক্তব্যে রাখেন বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি রাঙামাটি ইউনিটের সেক্রেটারি এম. বখতেয়ার উদ্দিন। অনুষ্ঠানটির সঞ্চালনায় ছিলেন সোসাইটির ইউনিট অফিসার আজরু উদ্দিন সাফ্দার।
আলোচনা সভায় বক্তরা বলেন, আর্তমানবতার সেবায় নিয়োজিত স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি বিশ্বব্যাপী কাজ করে যাচ্ছে। বাংলাদেশেও রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বিপন্ন মানুষের সেবায় নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। জরুরী ত্রাণ, দুর্যোগ সাড়াদান প্রস্তুুতি, ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা, স্বাস্থ্যসেবা, রক্তদান কর্মসূচি ও যুব রেড ক্রিসেন্ট কার্যক্রমসহ বিভিন্ন সেবামূলক কাজের মাধ্যমে এ সোসাইটি বাংলাদেশে এর কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।
বক্তারা বলেন, এ সংস্থা সময়ের পরিক্রমায় একটি শক্তিশালী ও কার্যকরী মানবিক সাহায্য সংস্থা হিসেবে বিশ্বের কোটি কোটি অসহায়, দুস্থ ও ক্ষতিগ্রস্ত মানুষকে সেবা দিয়ে যাচ্ছে।
বক্তারা বলেন, রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রাকৃতিক ও মানবসৃষ্ট দুর্যোগে যে অবদান রেখে যাচ্ছে তা অত্যন্ত প্রশংসনীয়। সকল দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্থ, অসহায় ও বিপন্ন মানুষের সেবায় বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির সেবা কার্যক্রম উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাবে এবং দুর্যোগ ব্যবস্থপনাও আরও শক্তিশালী হবে।
আলোচনাসভা শেষে ৮ জন যুবককে পুরস্কার প্রদান করেন অতিথিরা।
উল্লেখ, ১৮২৮ সালের ৮ মে সুইজারল্যান্ডের জেনেভা শহরে জন্মগ্রহণ করেন বিশ্ব রেড ক্রিসেন্ট আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা জিন হেনরি ডুনান্ট। তাঁর জন্মদিনকে স্মরণীয় করে রাখার লক্ষ্যে প্রতি বছর এ দিনটিকে বিশ্ব রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট দিবস হিসেবে পালন করা হয়।

বাংলা রিপোর্ট ডটকম/এমএকে