ব্রেকিং নিউজঃ

মর্যাদার লড়াইয়ে আবাহনীর জয়  ***  ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আওয়ামী লীগ নেত্রীকে কুপিয়ে হত্যা  ***  রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের জন্য ছাদহীন খোলা কারাগার, দশকের পর দশক ধরে প্রাতিষ্ঠানিক বর্ণবাদের শিকার এই বাসিন্দারা-অ্যামনেস্টি  ***  জিম্বাবুয়ের নতুন প্রেসিডেন্ট হিসাবে শুক্রবার শপথ নিতে যাচ্ছেন দেশটির সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট এমারসন নাঙ্গাগওয়া  ***  চট্রগ্রাম বিমানবন্দরে সাড়ে তিন কেজি স্বর্ণসহ এক যাত্রী আটক  ***  সরকার দেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করেছে- মির্জা ফখরুল  ***  মানবতাবিরোধী অপরাধে বসনিয়ার ‘সাক্ষাৎ শয়তান’ রাতকো ম্লাদিচের যাবজ্জীবন  ***  দ. কোরিয়ায় পালাতে গিয়ে সহকর্মীদের গুলিতে নিহত উ. কোরীয় সৈনিক  ***  জিম্বাবুয়ের প্রেসিডেন্ট হিসেবে ন্যানগাওয়ের শপথ শুক্রবার, আজ রাতে পালাতে পারেন মুগাবে  ***  কুড়িগ্রামে মৌমাছির কামড়ে ৩৭ জন শিক্ষার্থীসহ আহত অর্ধশতাধিক
Published: 5 months ago

নাফ নদী থেকে ২ জেলেকে ধরে নিয়ে গেছে বিজিপি



কক্সবাজার প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের টেকনাফের নাফ নদী থেকে বাংলাদেশি ২ জেলেকে ধরে নিয়ে গেছে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বর্ডার গার্ড পুলিশের (বিজিপি) সদস্যরা। ১৩ জুন মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে নাফ নদীর এক নম্বর স্লুইচ গেইট এলাকা থেকে নৌকাসহ এদের ধরে নিয়ে যাওয়া হয়।

 

ধরা নিয়ে যাওয়া জেলেরা হলেন- টেকনাফ পৌরসভার জালিয়াপাড়ার মোহাম্মদ কাশিমের ছেলে নুর কামাল (৩০) ও মোহাম্মদ হোসেনের ছেলে আবদুল করিম (৩২)।

 

নুর কামালের বাবা মোহাম্মদ কাশিম ও স্ত্রী নুর খাতুন জানান, নাফ নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে আর ফেরত না আসায় তারা খোঁজখবর নেওয়া শুরু করেন। অন্য জেলেরা জানিয়েছে ২ জনকে ধরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

 

নুর কামালের বাবা মোহাম্মদ কাশিম জানান, নাফ নদীতে মাছ ধরতে হলে প্রতি মাসে ৩ হাজার টাকা করে চাঁদা দিয়ে মিয়ানমারের বাহিনীর কাছ থেকে বিশেষ একটি টোকেন নিতে হয়। টেকনাফ পৌর এলাকার আবদুল হামিদের ভাড়া বাড়িতে থাকা মমতাজ মিয়া নামের এক দালাল এ টোকেন দেন। তার ছেলে টোকেন নেওয়ার পরও ধরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এ পর্যন্ত কোনো খোঁজখবর পাওয়া যাচ্ছে না। বিষয়টি ওই দালাল ও বিজিবিকে জানানো হয়েছে।

 

মমতাজ মিয়া নামের ওই দালাল টোকেন দেয়ার সত্যতা স্বীকার করে জানান, জেলেদের ভালোর জন্য টোকেন দেওয়া হয়। কিন্তু তারপরও কেন ধরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বুঝতে পারছি না। এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হচ্ছে।

 

বিজিবির টেকনাফস্থ ২ নম্বর ব্যাটালিয়ের অধিনায়ক লে. কর্নেল আরিফুল ইসলাম জানান, জেলে ধরে নিয়ে যাওয়া বিষয়টি কেউ তাকে জানায়নি। তিনি খোঁজখবর নিয়ে ব্যবস্থা নেবেন।

 

বাংলা রিপোর্ট ডটকম/এমএকে