ব্রেকিং নিউজঃ

Published: 4 months ago

ভবিষ্যৎ নির্মাণে শিক্ষা সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন : মৎস্য প্রতিমন্ত্রী



খুলনা প্রতিনিধি

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ বলেছেন, ভবিষ্যৎ নির্মাণের জন্য শিক্ষা সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন। শিশুরাই দেশের আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। আজকের শিশুরাই আগামী দিনে দেশকে নেতৃত্ব দিয়ে উন্নত দেশের সারিতে দাঁড় করাবে। এজন্য তাদের সুশিক্ষায় শিক্ষিত করে গড়ে তুলতে হবে।

বৃহস্প‌তিবার দুপুরে খুলনা ডুমুরিয়া উপজেলার মাগুরাঘোনা ইউনিয়নের বেতাগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বরে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট-এর ইউনিয়ন পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন দলের মাঝে পুরস্কার বিতরণ, ল্যাপটপ ও মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টর বিতরণ, প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় এ প্লাস ও বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তি‌নি এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার ২০১০ সালে থেকে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট চালু করেন। এ টুর্নামেন্ট চালুর ফলে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কোমলমতি শিশুদের খেলাধুলায় আগ্রহ বেড়েছে। ক্রিকেটের পাশাপাশি ফুটবল খেলায়ও বাংলাদেশ বিশ্বের কাছে পরিচিতি করছে আমাদের ক্রীড়াবিদরা। প্রাথমিক শিক্ষাকে আন্তর্জাতিক মানে পৌঁছে দেয়ার জন্য সরকার কাজ করে যাচ্ছে। দেশকে আরো উন্নয়নের দিকে এগিয়ে নিতে হলে শিক্ষা, বিদ্যুৎ ও যোগাযোগ ব্যবস্থায় উন্নয়ন করা।

তিনি আরও বালেন, শারীরিক সুস্থতার জন্য খেলাধুলা করা প্রয়োজন। পড়াশুনার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের খেলাধুলার প্রতিও গুরুত্ব দিতে হবে। ক্রীড়াচর্চার মাধ্যমে ছাত্র-ছাত্রীদের মনে নির্মল আনন্দ দেয়।

বেতাগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদের সভাপতি শেখ আবু হাসানের সভাপ‌তি‌ত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন ডুমুরিয়া উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান শিরিনা দৌলত, খুলনা জেলা পরিষদের মহিলা সদস্য শোভা রানী হালদার, মাগুরাঘোনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ আবুল হোসেন, আটলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাড. প্রতাপ রায়, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জিএম আলমগীর কবির এবং উপজেলা রিসোর্স সেন্টারের প্রতিনিধি মোঃ আবুল কালাম আজাদ। স্বাগত বক্তৃতা করেন বেতাগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রণজিতা দাস। অন্যান্যর মধ্যে বক্তৃতা করেন গোসরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ জিন্নাত হোসেন এবং উত্তর আরসনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ হাবিবুর রহমান।

পরে তিনি চ্যাস্পিয়ন ও রানার্স আপদের মাঝে ট্রফি তুলে দেন এবং প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় এ প্লাস ও বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন।

 

বাংলা রিপোর্ট ডটকম/এমএকে