ব্রেকিং নিউজঃ

Published: 5 months ago

মতলবে কালবৈশাখীতে বিদ্যালয়সহ শতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত : আহত ১০



চাঁদপুর প্রতিনিধি

চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর উপজেলায় সোমবার সকালে কালবৈশাখীর ছোবলে লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে এখলাছপুর চরাঞ্চলে প্রতিষ্ঠিত আলী আহমদ মিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়সহ শতাধিক ঘরবাড়ি। আহত হয়েছেন ১০ জন।

গুরুতর আহত ৪ জনকে চাঁদপুর ২৫০ শয্যা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এছাড়াও  ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে । বন্ধ হয়ে যায় মতলব উত্তর উপজেলার অধিকাংশ এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ।

উপজেলার উত্তর সর্দারকান্দি, দক্ষিণ সর্দারকান্দি, শাখারীপাড়া, চরকাশিম, বোরোচর, বাহেরচর, চরওমেদ, চর জহিরাবাদ, চরকাশিম মুরাদ মিয়ার বাজার, এখলাছপুর আশ্রায়ন প্রকল্প, বেড়িবাঁধ এলাকার ক্ষতিগ্রস্থরা জানান, এসব এলাকার অনেক বসতঘর পড়ে গেছে, গোয়ালঘর, দোকানপাট, জমির কাঁচা-পাকা ইরি-বোরো ধানগাছ, আখক্ষেত, মরিচ ক্ষেত ও তিল ক্ষেতেরও ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

এছাড়া উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম ও বাজারের ছোট-বড় অর্ধ শতাধিক ঘরবাড়ি লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে।

চরকাশিম বোরোচরের জাহাঙ্গীর আলম, মান্নান হাওলাদার, বারেক বকাউল, মাঈন উদ্দিন মোল্লা, নূর বকাউল,ওহাব মিজি, সর্দারকান্দি গ্রামের আক্তার হোসেন,নজির প্রধান,মোসলেম বেপারী, রুবেল রানা,নূর বানু, আসরাফ আলী,আবুল কালাম বেপারীসহ অনেকেই জানান, তাদের বসতঘর ঝড়ে বিধ্বস্ত হয়েছে।

চরকাশিম গ্রামের কৃষক মো. নেয়ামত উল্লাহ জানান, সোমবার সকাল ৭টার দিকে হঠাৎ কালবৈশাখী ঝড়ে স্কুল ভবন, দোকান পাট, বসতঘর, গাছপালা ও ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

ফরাজীকান্দি ইউপি সদস্য মাহবুব আলম মিস্টার জানান, সর্দারকান্দি গ্রামসহ আশপাশের কয়েক গ্রামের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া ঝড়ে ঘরবাড়ি, গাছপালা ও ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের সহযোগিতা জন্য সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. সালাউদ্দিন জানান, ঝড়ে ইরি ধান, ভুট্টা, আখ ও তিল ক্ষেতের বেশি ক্ষতি হয়েছে।

বাংলা রিপোর্ট ডটকম/এমএকে