ব্রেকিং নিউজঃ

Published: 6 months ago

জাতীয় ফল মেলা মাতাবে মাগুরার ব্রুনাই কিং ও ব্যানানা ম্যাংগো



মাগুরা প্রতিনিধি:

জাতীয় ফল মেলায় যাচ্ছে সরাদেশে সাড়াজাগানো মাগুরার আতিয়ার রহমানের সাড়ে চার কেজি  ওজনের “ব্রুনাই কিং” ও হর্টিকালচার সেন্টারের নতুন জাতের আম “ব্যানানা ম্যাংগো”। আগামী শুক্রবার থেকে ঢাকার খামারবাড়িতে তিনদিনের এ ফল মেলা অনুষ্ঠিত হবে।

 

মাগুরা হর্টিকালচার সেন্টারের প্রধান উদ্যানত্ত্ববিদ আমিনুল ইসলাম বলেন, ঢাকায় জাতীয় ফল মেলায় পাঠানোর জন্য ইতিমধ্যে শালিখার শতখালী গ্রামের আতিয়ার রহমানের কাছ আনা হয়েছে বিশালাকৃতির দু’টি ব্রুনাই কিং আম। এ ছাড়া মাগুরা হর্টিকালচার সেন্টারে ফলা নতুন জাতের ব্যানানা ম্যাংগো পাঠানো হচ্ছে ফল মেলায়।

আমিনুল ইসলাম আশা করছেন, এ বছরের জাতীয় ফল মেলার মূল আকর্ষণ হবে মাগুরা থেকে পাঠানো নতুন জাতের এ দু’টি আম।

 

ঢাকায় পাঠনো ব্রুনাই কিং জাতের আম দু’টির ওজন ৪ কেজি করে। এ আম পাকতে এখনো দেরি প্রায় দুই মাস। এ দুই মাসে এ আমের ওজন ৫ কেজি ছাড়িয়ে যেত বলে মনে করছেন আমিনুল ইসলাম। ব্রুনাই রাজ পরিবারের আমবাগান থেকে চার বছর আগে কলম ডাল এনে লাগান শতখালী গ্রামের আতিয়ার রহমান। প্রথম বছর তার গাছে ২টি, পরের বছর ৬টি, গত বছর ১১টি সাড়ে চার কেজি ওজনের আম ধরে। এ বছর তার গাছে ২০টি আম ধরেছে। ইতিমধ্যে তিনি চারা উৎপাদন করে তা বাণিজ্যিকভাবে বিক্রি শুরু করেছেন।

অন্যদিকে ব্যানানা ম্যাংগো ইতিমধ্যে পাক ধরেছে। সাগর কলার মত দেখতে অধিক ফলনশীল নতুন জাতের এ আমের জাতটি মূলত থাইল্যান্ডের। ২০১৪ সালে মাগুরা হর্টিকালচার সেন্টারের দু’টি কলম গাছ লাগান আমিনুল ইসলামি। পরের বছর থেকেই গাছে আম ধরতে শুরু করে। এ বছর দুটি গাছে জড়িয়ে আম ধরেছে। মিষ্টি ও অত্যন্ত সুস্বাদু এ আমের বিচি নেই বললেই চলে। তাছাড়া এ আমের খোসা পাতলা হওয়ায় পাকা আম প্রায় এক মাস ঘরে সংরক্ষণ করা যায়। মাগুরা হর্টিকালচার সেন্টারে এ আমের চারা পওয়া যাচ্ছে বলে জানান উদ্যানতত্ত্ববিদ আমিনুল ইসলাম।

 

বাংলা রিপোর্ট ডটকম/এমএকে