ব্রেকিং নিউজঃ

এবার সু চির খেতাব ফিরিয়ে নিল ‘ডাবলিন সিটি কাউন্সিল’  ***  রোনালদো-বেলের গোলে ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপের ফাইনালে রিয়াল মাদ্রিদ  ***  নেতাকর্মীদের নিয়ে বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে বেগম খালেদা জিয়ার শ্রদ্ধা  ***  ব্লগার নিলয় হত্যার প্রতিবেদন দাখিল ২৪ জানুয়ারি  ***  ঢাবির প্রশ্ন ফাঁসে রাবি ছাত্রসহ আটক ১০  ***  টেকনাফে রোহিঙ্গা শিবিরে অগ্নিকাণ্ডে স্কুলসহ ২৫ দোকান পুড়ে ছাই  ***  জেরুজালেমকে ট্রাম্পের স্বীকৃতি আন্তর্জাতিক আইনের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন : আব্বাস  ***  ঘন কুয়াশায় শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ  ***  মিরপুর বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতির শ্রদ্ধা  ***  ট্রাম্পের ঘোষণা প্রত্যাখ্যান, জেরুজালেমকে ফিলিস্তিনের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিলো ওআইসি
Published: 3 months ago

শত কোটি টাকা ও ৩ বছরের সন্তান রেখে এরা কেন চলে যেতে চায় ?



বাংলা রিপোর্ট ডেস্ক:

মাত্র চার বছর হলো বিয়ে হয়েছে সুমিত রাঠৌর ও অনামিকা দম্পতির। ঘরে রয়েছে ৩ বছরের ফুটফুটে এক শিশু, এবং ১০০ কোটি টাকার সম্পত্তি। তবে সব ছেড়ে দিয়ে এখন সন্ন্যাস জীবন বেছে নিচ্ছেন ভারতের মধ্যপ্রদেশের এই দম্পতি। গোটা সম্প্রদায়ই এতে বিস্মিত।

 

সুমিত রাঠৌর ও অনামিকা। দুইজনের বয়স যথাক্রমে ৩৫ ও ৩৪। এ ব্যাপারে তারা জানান ২৩ সেপ্টেম্বর সুধামার্গি জৈন আচার্য রামলাল মহারাজের কাছে তারা দীক্ষা নেবেন। সন্ন্যাসী হওয়ার এটাই প্রথম ধাপ।

 

অনামিকা ও তার স্বামী সুমিত রাঠোর নীমচ শহরের একটি প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী পরিবারের সদস্য ৷ বিলাসবহুল জীবন ছেড়ে কেন এই দম্পতি সংসারধর্ম ত্যাগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তা নিয়ে অনেকের মনেই প্রশ্ন উঠেছে ৷

 

পরিবারের সদস্যরা তাদের অনেক বোঝানোর চেষ্টা করেছেন ৷ কিন্তু দীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্তে দুইজনেই অনড় ৷ আগামী বৃহস্পতিবার পরিবার ও সমাজকে ত্যাগ করে দীক্ষা নেওয়ার জন্য তারা গুজরাটের উদ্দেশ্যে রওনা দেবে বলে জানা গিয়েছে ৷

 

সুমিত লন্ডন থেকে এক্সপোর্ট-ইমপোর্টে ডিপ্লোমা করেছেন ৷ দুইবছর সেখানে চাকরি করার পর নীমচ ফিরে পারিবারিক ব্যবসায় যোগ দেন তিনি ৷ সুমিতের প্রায় ১০০ কোটি টাকার সম্পত্তি রয়েছে৷ তার স্ত্রী অনামিকা অত্যন্ত মেধাবী ছাত্রী ছিলেন৷ কিন্তু বিয়ের পর চাকরি ছেড়ে দেন তিনি ৷

 

তাদের এই পদক্ষেপ নিয়ে এত প্রশ্ন উঠছে তার কারণ তাদের একটি তিন বছরের মেয়ে রয়েছে ৷ মা-বাবার এই সিদ্ধান্তে একা হয়ে যাবে সে ৷ এই বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে দম্পতি জানায় যে যাদের মা বাবা নেই তারাও পরিবারের মাঝে বড় হয়ে ওঠে ৷ তাই তাদের সন্তানও সেই ভাবেই বড় হয়ে উঠবে ৷

 

জৈন সম্পদায়ের মধ্যে সন্ন্যাস নেবার ঘটনা বিরল না হলেও এত কম বয়সে এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার ঘটনা বিরল। তাদের এই সিদ্ধান্তে অবাক হয়েছেন সাধুমার্গি জৈন সেবক সঙ্ঘের সম্পাদক প্রকাশ ভান্ডারীও। তিনি বলেন, কম বয়সী কোন দম্পত্তির সব ছেড়ে সন্ন্যাস নেওয়ার ঘটনা এবারই প্রথম ঘটতে যাচ্ছে।

 

বাংলা রিপোর্ট ডটকম/এমএম