ব্রেকিং নিউজঃ

Published: 2 months ago

শুল্ক গোয়েন্দা কার্যালয়ে আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার



আপন জুয়েলার্স থেকে জব্দ করা বিপুল পরিমাণ স্বর্ণ ও হীরার বিষয়ে জবাব দিতে শুল্ক গোয়েন্দা কার্যালয়ে উপস্থিত হয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির মালিক দিলদার আহমেদ সেলিম।

বুধবার জিজ্ঞাসাবাদ শেষে শুল্ক গোয়েন্দা কার্যালয় থেকে বের হওয়ার সময় বিকেল সোয়া ৫টার দিকে সাংবাদিকদেরকে আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার বলেন,
আমাদের অবৈধ কোন মাল নেই। সব কিছুরই বৈধ কাগজপত্র আছে, সেগুলো জমা দেয়াটা সময়ের ব্যাপার। অন্যান্যরা যেভাবে ব্যবসা করছে, আমরাও একইভাবে ব্যবসা করছি। সুতরাং আপন জুয়েলার্স বন্ধ করতে হলে সারা বাংলাদেশের জুয়েলার্স বন্ধ করতে হবে। । এ সময় আপন জুয়েলার্সের অন্য দুই মালিক আজাদ আহমেদ ও গুলজার আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

তিনি আরও বলেন, শুল্ক গোয়েন্দার অধিকার রয়েছে আমাদের দোকান সার্চ করার। তারা আমাদের স্বর্ণ ও ডায়মন্ড জব্দ করেছে। আমরা পেপার্স শো করব। পনেরো দিন সময় নিয়েছি। ‘একই সঙ্গে আইনজীবীদের সঙ্গে কথা বলে এ বিষয়ে আমরা পরবর্তী ব্যবস্থা নেব।

 

১৪ ও ১৫ মে রাজধানীকে আপন জুয়েলার্সের ছয়টি বিক্রয় কেন্দ্রে অভিযান চালিয়ে প্রায় ১৩ মণ স্বর্ণ এবং ৬১ গ্রাম হীরা জব্দ করে শুল্প গোয়েন্দারা।
এর মধ্যে প্রথম দিনের অভিযানে চারটি বিক্রয়কেন্দ্রে জব্দ করা হয় ২৮৬ কেজি স্বর্ণালঙ্কার এবং ৬১ গ্রাম হীরা। আর দ্বিতীয় দিন প্রতিষ্ঠানটির প্রধান কার্যালয়ে অভিযান চালিয়ে জব্দ করা হয় ২১২ কেজি স্বর্ণালঙ্কার। সব মিলিয়ে জব্দ করা স্বর্ণের পরিমাণ ১২ মণ ৩৫ কেজি। রাতে অভিযান শেষে পাঁচটি শোরুম সিলগালা করে দেয় শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতর।

এসব স্বর্ণের বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদ সেলিমকে তলব করে শুল্ক গোয়েন্দা অধিদপ্তর। তাকে বুধবার উপস্থিত হতে নির্দেশ দেয়া হয়।

বাংলা রিপোর্ট ডটকম/ এ,এইচ