ব্রেকিং নিউজঃ

Published: 4 months ago

যশোরে অনলাইন ফ্রিল্যান্সারদের সুদিন



যশোর সংবাদদাতা:

যশোর পলিটেকনিকের ছাত্রী সাবরিনা আফরোজ আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে মাসে প্রায় লাখ টাকা আয় করেন। ঘরে বসে গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজ করে তিনি এ উপার্জনে পরিবারে স্বচ্ছলতা এনেছেন।

 
গ্রাফিক্স ডিজাইনে সাগর রায় নামে আরেকজন শিক্ষার্থী গত মে মাসে আয় করেছেন এক লাখ ৬ হাজার টাকা। সরকারের আইসিটি ডিভিশনের র্লানিং অ্যান্ড আর্নিং ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্টের আওতায় প্রশিক্ষণ নিয়ে এভাবে মাসিক ৫০ হাজার থেকে এক লাখ টাকা আয় করছেন যশোরের অগণিত তরুণ-তরুণী।

 

যশোর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে সোমবার র্লানিং অ্যান্ড আর্নিং প্রকল্পের সমাপনী অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে তারা নিজেদের আত্মকর্মসংস্থানের গল্প শোনান অতিথিদের। তাদের গল্পে মুগ্ধ প্রধান অতিথি যশোরের জেলা প্রশাসক ড. হুমায়ুন কবীর বলেন, তোমরা বিয়ের সময় পাত্রপাত্রীর যোগ্যতা হিসেবে আউটসোর্সিং উল্লেখ করবে; বিসিএস ক্যাডার নয়।

 

অতিথির আসনে থাকা বিসিএস ক্যাডারদের দেখিয়ে তিনি বলেন, এদের চেয়ে আউটসোর্সিংয়ে বেশি উপার্জন। আর প্রকল্পের পরিচালক মীর্জা আলী আশরাফ বলেন, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে আইটি বন্ধুরাই এখন প্রধান নিয়ামক। তাই চাকরির পেছনে না ঘুরে নিজেরা উদ্যোক্তা হয়ে অন্যের চাকরি দেবে।

 

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- যশোরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আসাদুল হক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) দেব প্রসাদ পাল, ক্যাপাসিটি বিল্ডিং সার্ভিসের চিফ এক্সিকিউটিভ ওবাইদুর রহমান ও প্রেসক্লাব যশোর সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন।

বাংলা রিপোর্ট ডটকম/এএইচ