ব্রেকিং নিউজঃ

Published: 2 months ago

সেহেরি খাওয়ার কিছু সতর্কতা



সারাদিন পানি পিপাসা পাওয়া, কিংবা সেহেরির পর হাসফাঁস হওয়া এমন অনেক সংকট। তাই সেহেরি খেতে হবে ভীষণ বুঝেশুনে।

 

সারাদিন রোজা থাকতে হবে, তাই শেষরাতে ঠেসে-ঠুসে সেহেরি খাই আমরা। একগাদা খাবার খাওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই গলা পর্যন্ত পানি গিলে তারপর তড়িঘড়ি নামাজ সেরে ঘুম।

 

এই হচ্ছে রমজানে আমাদের রুটিন। সকালে ঘুম থেকে উঠে অফিস, স্কুল নয়তো কাজে বের হওয়া সঙ্গে ভয়ঙ্কর গলায় জ্বালা।

 

১) সেহেরিতে ভারি খাবার একদম খাওয়া যাবে না।

 

২) বিরিয়ানী, পোলাউ জাতীয় খাবার একদম উচিত না।

 

৩) নির্ধারিত সময় শেষ হওয়ার ৪০ মিনিট আগেই সেহেরি খেয়ে নিতে হবে।

 

৪) ভাজা-পোঁড়া জাতীয় খাবার না হলেই ভালো।

 

৫) দুধ পছন্দ করলে খেতে পারেন। তবে না খাওয়াটা উচিত।

 

৬) সেহরির খাবারে বেশি ঝাল যেনও না থাকে।

 

৭) গরুর মাংস এড়িয়ে চলাটাই ভালো

 

৮) মাছ থাকতে পারে সেহেরিতে। সর্বোপরি স্বাস্থকর খাবার থাকতে হবে।

 

৯) সলিড খাওয়ার ২০ মিনিট পর পানি পান করতে হয়। তাই ভাত খেয়েই পানি খাবেন না একটু পর খাবেন।

 

১০) সেহরির পর সামান্য কিছু সময় হাঁটার সুযোগ থাকলে সেটি করবেন।

বাংলা রিপোর্ট ডটকম/এম/এম.