ব্রেকিং নিউজঃ

Published: 2 months ago

ঈদে টপ স্টাইল জিন্স প্যান্টের ফ্যাশন!!



ঈদে জিন্স প্যান্টের বাজার বেশ নড়েচড়ে বসেছে। স্টাইলিশ সব জিন্সের পশরা সাজিয়ে বসেছে ফ্যাশন হাউজগুলো।

 

এবারে বিভিন্ন বয়সের লোকেরা পছন্দের পোশাকের তালিকায় একটি বড় জায়গা দখল করে আছে আঁটসাঁট-প্রকৃতির জিন্স। অনেকেই আবার একটু ঢিলেঢালা প্যান্ট পরতেই বেশি পছন্দ করে। কেউ বা আবার গ্যাবাটিন প্যান্টের দিকে ঝোঁক দিচ্ছে।

 

ফ্যাশন স্টাইলে জিন্সের ধারণা খুব একটা নুতন নয়। পোশাকের ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রিতে জিন্সের চলন শুরু বহু আগে থেকে। সর্বপ্রথম উনিশ শতকের দিকে জিন্সের উদ্ভাবন। এর পর থেকে সেই স্টাইল সারা দুনিয়া জুড়ে বিখ্যাত হয়ে উঠে, যার চলন আজো অমলিন।

 

ছেলে মেয়ে উভয়ের জন্য জিন্সের বিভিন্ন স্টাইল জনপ্রিয়। চলুন আকর্ষণীয় এই পোশাকের ঈদ টপ ফ্যাশনেবল কালেকশনগুলো দেখে নেই।

 

একটা সময়ে জিন্স মানেই ছিল অনেক মোটা কাপড় আর শীতের সময়ে আরামদায়ক এমন পোশাক। কিন্তু এখন সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বদলে গেছে জিন্স। যেহেতু তরুণ-তরুণীরা দিনের অনেকটা সময় বাইরে থাকে, তাই তাদের আরামের কথা ভেবেই এখন জিন্সের প্যান্ট তৈরি করা হয়।

 

এখন জিন্সের প্যান্ট অনেক পাতলা ও নরম কাপড়ের হওয়ায় এর জনপ্রিয়তা বেড়েছে অনেক। রং ও সুতার ব্যবহারে এখন মাথায় রাখা হয়। তাই শীত-গ্রীষ্ম সব সময়ই জিন্স আরামদায়ক। যেমন চলছে এ সময়ের ট্রেন্ড মূলত হালকা কাপড়ের জিন্স। ন্যারো কাটের প্যান্টগুলো বেশি চলছে।

 

কেউ কেউ আবার স্কিন ফিটিং নিচ্ছে। যাদের বয়স ত্রিশের ওপরে, এমন লোকেরা স্লিম ফিট পছন্দ করছেন বেশি।
ন্যারো কাট থেকে লো-রাইজ জিনস। স্লিম থেকে স্কিনি জিনস। বদলে যাওয়া সময়ের ফ্যাশনের সঙ্গে সঙ্গে পাল্টেছে জিনসের প্যাটান। কিন্তু ফ্যাশন ট্রেন্ডে কমেনি জিনসের জনপ্রিয়তা। এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া কঠিন যিনি কখনো জিনস পরেননি।

 

সব বয়সী মানুষের পছন্দের তালিকায় জিনস জায়গা করে নিলেও দিনে তরুণ-তরুণীদের মধ্যে এর আকর্ষণ আর আবেদনটা সবচেয়ে বেশি। অন্য অনেক কিছুর মতোই পাশ্চাত্য থেকে আসা জিনসের প্যান্ট একটা সময় ছিল কেবল পুরষদের জন্য।
কোনো মেয়ে জিনস পরে বাইরে বেরোনোর কথা ভাবতেই পারত না। সময় বদলেছে, পাল্টে গেছে দৃষ্টিভঙ্গি।জিনস এখন হয়ে ওঠেছে তরুণীদের নিত্যসঙ্গী।এটা এখন ছেলে-মেয়ে নির্বিশেষে পরে।

 

মেয়েরা স্কিন টাইট জিন্সের সঙ্গে টপস, শার্ট, ফতুয়া, শর্ট কামিজ পরছে। এটা পরে চলাফেরা করা সহজ। মেয়েদের জিনস আর ছেলেদের জিনসে কিছুটা ভিন্নতা রয়েছে।
এবারে জেনে নেওয়া যাক আরও কিছু তথ্য :

জিনসের যত্ন : জিনসের মূল কথাই হলো, রাফ অ্যান্ড টাফ। তাই খুব যত্নের সঙ্গে দেখভালের প্রয়োজন নেই। তবে ধোয়ার সময় ঠাণ্ডা পানিতে ধোয়া উচিত। রোদে শুকানোর সময় উল্টো করে শুকাতে দিন। রং যদি উঠে যায়, তবে ড্রাই ক্লিন করাতে পারেন।

 

বাজারদর : ব্র্যান্ড ভেদে জিন্সের দামের বেশ কিছুটা পার্থক্য রয়েছে। ৫০০ টাকা থেকে শুরু করে ১০ হাজার টাকা দামের প্যান্টও বাজারে রয়েছে। তবে এক্সক্লুসিভ স্কিনি জিনসগুলো দুই হাজার টাকার মধ্যেই পাওয়া যাবে।
কোথা থেকে কিনবেন:

রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসগুলো থেকেই আপনার পছন্দের জিন্সপ্যান্ট কিনে নিতে পারবেন। তবে বর্তমানে জিন্স কেনার জন্য অনেকেই অনলাইন শপিংমলের ওপর আস্থা রাখছে। আপনিও আপনার পছন্দের প্যান্ট অনলাইন শপিংমল থেকে কিনে নিতে পারেন।

 

বাংলা রিপোর্ট/এম/এম.