ব্রেকিং নিউজঃ

Published: 1 week ago

যৌন হেনস্তার প্রতিবাদীরাই টাইম ম্যাগাজিনের বর্ষসেরা



বাংলা রিপোর্ট ডেস্ক:

সমীক্ষার প্রাথমিক শর্তই হলো সংশ্লিষ্ট বছরে সবচেয়ে প্রভাবশালী। সেই নিরিখেই টাইম ম্যাগাজিনের ২০১৭-র ‘পার্সন অব দ্য ইয়ার’ হলেন #MeToo লিখে যৌন হেনস্থার প্রতিবাদ জানানো প্রত্যেক নারী। মার্কিন সময় বুধবার সকালে এই ঘোষণা করেন টাইম ম্যাগাজিনের এডিটর-ইন-চিফ এডওয়ার্ড ফেলসেন্থল। 

 

উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উন, সৌদি আরবের বাদশাহ মহম্মদ বিন সালমান এর মতো বিশ্বের তাবড় ব্যক্তিত্বদের হারিয়ে বর্ষসেরার সম্মান পেলেন যৌন হেনস্তার প্রতিবাদী ওইসব নারী। যারা #MeToo স্টেটাস লিখে ওয়েব দুনিয়ায় নিজেদের যৌন হেনস্তার অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন।

 

জনপ্রিয় মার্কিন শো ‘দ্য টুডে শো’-তে এই ঘোষণার সময়ে ফেলসেন্থল বলেন, ‘গত কয়েক দশকে কোনো সামাজিক আন্দোলনকে এত দ্রুত বিশ্বব্যাপী ছড়াতে দেখিনি। ওই সকল একশোর বেশি মহিলা ও পুরুষদেরকে আমরা কুর্নিশ জানাচ্ছি। আগামীকাল শুক্রবার ‘দ্য সাইলেন্স ব্রেকার’(#MeToo এর মাধ্যমে নিরবতা ভাঙাদের) বর্ষসেরা ঘোষণা করে টাইম ম্যাগাজিনের পরবর্তী সংস্করণ মুক্তি পাবে।’

 

২০০৬ সালে সমাজকর্মী তারানা বার্ক প্রথম #MeToo প্রতিবাদ শুরু করেছিলেন। গত অক্টোবরে হলিউড অভিনেত্রী আলিশা মিলানো পুনরায় এই সামাজিক প্রতিবাদের ডাক দেন। তার পরই বিশ্বব্যাপী যেসব নারী যৌন হেনস্তার শিকার হয়েছেন, তারা #MeToo স্টেটাস লিখে ওয়েব দুনিয়ায় নিজেদের অভিজ্ঞতা শেয়ার করা শুরু করেন।

 

উল্লেখ্য, প্রযোজক হার্ভে ওয়েনস্টেইনের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ ওঠার মাধ্যমে তোলপাড় হয় হলিউড। মুখ খোলেন বহু অভিনেত্রী। সেই তালিকায় অ্যাঞ্জেলিনা জোলির মতো তারকাও ছিলেন। সরাসরি না হলেও, বলিউড কুইন ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চনকেও এই হার্ভে একান্তে কাছে পাওয়ার জন্য প্রস্তাব দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ আনেন ঐশ্বর্যের সাবেক ম্যানেজার সিমন।

বাংলা রিপোর্ট ডটকম/এইচএম