ব্রেকিং নিউজঃ

Published: 1 month ago

১০০ কোটি টাকার সম্পত্তিও ছাড়লেন, মেয়েটাকেও রাখলেন না, জীবনটা আসলে কোন পথে?



বাংলা রিপোর্ট ডেস্ক

৩ বছরের মেয়ে থাকবে দাদুর কাছে আর ১০০ কোটি টাকার সম্পত্তিও ছাড়লেন। সন্ন্যাসী হবে বলেই এসব ত্যাগ করলেন এক জৈন দম্পতি! ভোগবিলাসের জীবনকে বিদায় দিচ্ছেন মধ্যপ্রদেশের নিমাচের সুমিত, অনামিকা রাঠোর।

 

 

বর্তমানে স্বামী-স্ত্রী রীতি মেনে কথা বলাও বন্ধ করে দিয়েছেন। ২৩ সেপ্টেম্বর গুজরাতের সুরাটে সুধামার্গি জৈন আচার্য রামলাল মহারাজের কাছে দীক্ষা নেবেন দুজনে। মেয়ে ইভিয়া থাকবে অনামিকার বাবা অশোক চান্দালিয়ার কাছে। চান্দালিয়া ছিলেন বিজেপির নিমাচ শাখার জেলা সভাপতি।

 

 

চার বছর আগে বিয়ে হয় দুজনের। মেয়ের বয়স যখন সবে ৮ মাস, তখনই নাকি তারা আধ্যাত্মিক পথে পা রাখার ইঙ্গিত দেন। প্রস্তুতি হিসেবে আলাদা থাকতেও শুরু করেন দুজনে। অবশেষে গত ২২ আগস্ট পরিবারের সদস্যদের সন্ন্যাস জীবন বেছে নেয়ার সিদ্ধান্ত জানান।

 

 

বাকিদের মাথায় আকাশ ভেঙে পড়ার সিদ্ধান্ত। নিমাচের রাজনীতি, ব্যবসায়ী মহলে পরিবারটি দারুণ প্রতিষ্ঠিত। তাদের ঘরের ছেলে, ছেলে বৌমা কি-না সংসারত্যাগী হবে! অনেক বুঝিয়েও অবশ্য কোনও ফল হয়নি। প্রতিজ্ঞায় অনড় দুজনে। ধর্মের ব্যাপারে তো হস্তক্ষেপ করা চলে না, এই বলে ওদের সিদ্ধান্তই অনিচ্ছা সত্ত্বেও মেনে নেন তারা।

 

 

সুমিতের বাবা রাজেন্দ্র সিংহ অবশ্য বলেছেন, এমনটা একদিন হবে জানা ছিল। তবে এত তাড়াতাড়ি ভাবতে পারিনি।

 

 

আত্মীয়-স্বজনরাও হতবাক সুমিত, অনামিকার সিদ্ধান্তে। দুজনেরই বয়স ৩০-এর ঘরে। সুমিতের আত্মীয় সন্দীপ যেমন বললেন, মানুষ জীবনে যা যা চায় সবই ছিল ওদের। ১০০ কোটি টাকার সম্পত্তি, কন্যা। কিন্তু সবই তো ছেড়ে দিচ্ছে। আমরা হতবাক।

 

 

সন্ন্যাস নেয়ার আগে দীক্ষা হয় জৈনদের। অধিকাংস ক্ষেত্রেই সুমিত, অনামিকার মতো অল্পবয়সি দম্পতিরা দীক্ষা নেয় না, ছেলেমেয়েদর জীবনে প্রতিষ্ঠিত হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করে। এই প্রথম দেখছি, কোনও দম্পতি এত কম বয়সে দীক্ষা নিচ্ছে, তাও তিন বছরের মেয়েকে ছেড়ে। বলেছেন সাধুমার্গি জৈন শ্রবক সঙ্ঘের সম্পাদক প্রকাশ ভান্ডারি।

 

 

সম্প্রতি বর্শিল শাহ নামে আমেদাবাদের ১৭ বছরের একটি ছেলেও ১২ ক্লাসের পরীক্ষায় ৯৯.৯ শতাংশ নম্বর পেয়েও সোনালি ভবিষ্যতের হাতছানি প্রত্যাখ্যান করে সন্ন্যাস জীবন গ্রহণ করেছে। এখন সে হয়েছে সুবির্য রত্ন বিজয়জী মহারাজ।

 

বাংলা রিপোর্ট/এফএম