ব্রেকিং নিউজঃ

Published: 5 months ago

খাদ্যের অভাবে ১ মিলিয়নের অধিক শিশু দক্ষিণ সুদান থেকে পালাতে বাধ্য হয়েছে



জাতিসংঘ বলেছে, দক্ষিণ সুদানে খাদ্যাভাব এক চরম পর্যায়ে পৌঁছছে যে, ১০ লক্ষের অধিক ‍শিশু পৃথিবীর নবীনতম  রাষ্ট্র থেকে পলায়নপর করতে বাধ্য হচ্ছে। জাতিসংঘ বলছে, দক্ষিণ সুদানের মত শরণার্থী সংকট তাদেরকে এত পীড়িত করে না।

সোমবার জাতিসংঘের দু’টি সংস্থা বলেছে, দক্ষিণ সুদানের গৃহযুদ্ধে দেশটি থেকে ১ মিলিয়নের অধিক শিশু পালিয়েছে। এটি পৃথিবীর সর্বাপেক্ষা ক্রমার্ধমানশীল শরণার্থী সংকট।

সোমবার জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংস্থা বিবৃতিতে বলেছে, দক্ষিণ সুদানের গৃহযুদ্ধের করণে আরও ১ মিলিয়ন শিশু বাড়িঘর থেকে বিতাড়িত হয়ে দেশের অভ্যন্তরে শরণার্থী হয়েছে।

ইউনিসেফ দক্ষিণ ও পূর্ব আফ্রিকার আঞ্চলিক পরিচালক লেইলা পাক্কালা বলেন,“ একটি প্রজম্মের ভবিষ্যত সত্যিই ধ্বংসের প্রান্তে। সর্বাপেক্ষ ভংঙ্কর যে, প্রতি ৫ জনে ১ জন দক্ষিণ সুদানে শিশু তাদের বাড়ি থেকে পালাতে বাধ্য হচ্ছে। যা প্রতিবিম্বিত হয় যে, এই গৃহযুদ্ধ কতইনা দুর্দশাগ্রস্ত।”

জাতিসংঘ বিবৃতিতে বলছে, দক্ষিণ সুদানের শরণার্থী মধ্যে ৬২ শতাংশ শিশু এবং ৭৫,000 অধিক শিশু তাদের পরিবার ব্যতীত একাকী হয়ে পড়েছে। প্রায় ১.৮ মিলিয়ন মানুষ দক্ষিণ সুদান থেকে পালিয়েছে।

ইউএনএইচসিআর আফ্রিকা বুরো পরিচালক বলেন, “দক্ষিণ সুদানের চেয়ে কোনো শরণার্থী সংকট আমাকে পীড়িত করেনা। এই সব শরণার্থী শিশু জরুরী সংকটের এক একটি মুখ।”

যেসব শিশু দক্ষিণ সুদানে এখনো আছে তাদের দুর্দশা ভয়াবহ। জাতিসংঘ বিবৃতি অনুযায়ী প্রায় ৪ ভাগের ৩ ভাগ শিশু স্কুল বিমুখী, যা পৃথিবীর মধ্যে সর্বোচ্চ সংখ্যক। দক্ষিণ সুদানের দু’টি প্রদেশে সরকারি ভাবে দুর্ভিক্ষ ঘোষণা করা হয় ফ্রেবুয়ারিতে।জাতিসংঘের মতে, শত, হাজার শিশু খাদ্য সহায্যের অভাবে উপোস আছে।

বাংলা রির্পোট ডটকম/রেজা আফসারী