ব্রেকিং নিউজঃ

Published: 2 months ago

কাঁটাতারের বেড়া যেন বাধা না হয়: শর্মিলা ঠাকুর



বিনোদন ডেস্ক:

গত শুক্রবার ঢাকায় এলেও খুব ক্লান্ত থাকার কারণে সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হতে পারেননি শর্মিলা ঠাকুর। তবে শনিবার ঠিকই দেখা মিললো বলিউডের কিংবদন্তি এই তারকার। ওইদিন রাত তখন ৮টা ৫০ মিনিট। রাজধানীর বসুন্ধরা কনভেনশন সেন্টারের গুলনিকেতন হলের আলোকিত মঞ্চ। আর হলভর্তি দর্শক।

 

শর্মিলা ঠাকুর অভিনীত বিভিন্ন চলচ্চিত্রের গানের সঙ্গে পারফর্ম করে গেছেন বাংলাদেশের শিল্পী নাদিয়া, ইভান সোহাগ, তারিন ও চাঁদনী।

 

অভিনেত্রী শর্মিলা ঠাকুর হাসিমুখে মাইক্রোফোন হাতে নিয়ে বললেন, ঢাকা আমার খুব প্রিয় শহর। অনেকদিন পর আবার এখানে এলাম। মনে হলো নিজের ঘরে ফিরে এলাম। বাংলাদেশের সঙ্গে আমাদের পরিবারের নাড়ির টান।

 

তিনি আরো বলেন, ইতিহাস-রাজনীতি আমাদের ভাগ করে দিলেও মনের টান কমেনি। আমাদের ভাষা, শিল্প এক ও অভিন্ন। তাই এ দেশে এলেই নাড়ির টান অনুভব করি। তিনি আরও বলেন, দু-দেশের সংস্কৃতির আদান-প্রদানের সবচেয়ে বড় মাধ্যম হচ্ছে সিনেমা। তাই একজন শিল্পী হিসেবে আমি চাইবো যৌথ প্রযোজনায় আরো বেশি সিনেমা নির্মিত হোক। কাঁটাতারের বাধা যেন আদান প্রদানের প্রতিবন্ধকতা না হয়। এ দেশের শিল্পী আমাদের ওখানে (ভারত) যান। আমাদের ওখানকার শিল্পীরা এখানে আসুক।

 

এরপর শর্মিলা ঠাকুর আয়োজক প্রতিষ্ঠান চ্যানেল লাইভ এন্টারটেইনমেন্টের কাছে কৃতজ্ঞাতা প্রকাশ করেন। সে সময় এ প্রতিষ্ঠানের সিইও অনন্যা রুমা ও বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল এটিএন বাংলার চেয়ারম্যান ড. মাহফুজুর রহমানসহ সংশ্লিষ্ট অন্যরা মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন। তারপর মঞ্চে আসেন ভারতীয় সংগীত পরিচালক ও গায়ক জিৎ গাঙ্গুলী।

 

তিনি একে একে গেয়ে শোনান ‘ওলালা’, ‘কি করে তোকে বলবো’, ‘খুঁজেছি তোমায় রাত বিরাতে’, ‘তুহি হে চ্যাম্প’, ‘হান্ডেড পার্সেন্ট লাভ’, ‘জিয়া জায়ে না’সহ বেশকিছু জনপ্রিয় গান। এটিএন বাংলার ২০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে চ্যানেল লাইভ এন্টারটেইনমেন্ট আয়োজিত ‘শর্মিলা ঠাকুর-জিৎ গাঙ্গুলী লাইভ ইন ঢাকা’ পাওয়ার্ড বাই ভিশন কনসার্টে অংশ নিতে এসে গানের মাঝে জিৎ গাঙ্গুলী বলেন, এটিএন বাংলার ২০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী এবং ঢাকায় প্রথমবার গান করতে পেরে খুব ভালো লাগছে।

এই সুযোগ করে দেবার জন্য ড. মাহফুজুর রহমানকে ধন্যবাদ। এখানে এসে মন ভরে গেল আমার। এটা আমার জীবনে এটা একটা হিস্ট্রিরি হয়ে থাকবে। এদিকে জিৎ গাঙ্গুলীর পাশাপাশি কয়েকটি গান পরিবেশন করেন ভারতের কণ্ঠশিল্পী দোয়েল গোস্বামী।

বাংলা রিপোর্ট ডটকম/এইচএম