ব্রেকিং নিউজঃ

Published: 6 months ago

তিন খানের পরেই স্থান করে নিয়েছেন প্রভাস



দক্ষিণ ভারতের নায়ক প্রভাস এখন ‘বাহুবলী’র কল্যাণে ভারতের অন্যতম বড় তারকা। বলিউড তারকা সালমান খান, আমির খান ও শাহরুখ খানের পরেই স্থান করে নিয়েছেন তিনি।

সিনেমা প্রেমীদের মুখে এখন শুধু ‘বাহুবলী ২’ ও এর নায়ক প্রভাসকে নিয়ে আলোচনা। এরই মধ্যে এক হাজার কোটি রুপি আয় ছাড়িয়েছে ছবিটি। এ ছবির পরই তেলেগু ছবির অন্যতম তারকা প্রভাস বাড়িয়ে দিয়েছেন তার পারিশ্রমিক।

‘বাহুবলী’ সিরিজের দুটি ছবির পরই দক্ষিণের ছবির প্রযোজক-পরিচালকরা প্রভাসকে পরবর্তী সিনেমায় নিতে চাইবেন। কিন্তু এ ক্ষেত্রে তাদের গুনতে হবে ৩০ কোটি রুপি। ‘বাহুবলী’র বিস্ময়কর সাফল্যের পর বলিউডেও বিগ শট হতে যাচ্ছেন এ নায়ক।

‘বাহুবলী ২’ছবির জন্য প্রভাস পারিশ্রমিক নিয়েছেন ২৫ কোটি রুপি। এ ছবির পরই পারিশ্রমিক বাড়িয়ে দেন তিনি। এখন থেকে নিচ্ছেন ৩০ কোটি।

২০১৮ সালে মুক্তির লক্ষ্য এখন প্রভাস ব্যস্ত ‘সাহো’ছবির শুটিংয়ে। তবে প্রভাস ছবিপ্রতি এখন যা নিচ্ছেন, তাতে তেলেগু ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির অনেকে তার পারিশ্রমিক দিতে পারবেন কিনা, তা নিয়ে সন্দেহ আছে। তাই তিনি এখন বিগ শট। তবে এত কিছুর পরও ভারতের সিনেমাবাজারে তিনি পিছিয়ে। পারিশ্রমিকে সবার ওপরে সালমান খান। তার পরই আছেন মি. পারফেকশনিস্ট আমির খান ও বলিউড কিং শাহরুখ খান।

সালমান খান কয়েক বছর ধরে বক্স অফিসে একের পর এক ঝড় তোলা ছবি উপহার দিয়ে যাচ্ছেন। ছবিতে সালমান আছেন জানলে, দর্শকরা প্রেক্ষাগৃহে হুমড়ি খেয়ে পড়েন। জনপ্রিয়তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে পারিশ্রমিকের অঙ্কটাও দিনের পর দিন বেড়েই চলেছে তার। এখন প্রতি ছবিতে ৬০ কোটি রুপি নিচ্ছেন ‘বজরঙ্গি ভাইজান’সালমান।

চরিত্র বাস্তবসম্মতভাবে ফুটিয়ে তুলতে কোনো রকম ছাড় দিতে রাজি নন আমির খান। প্রতিটি ছবির জন্য ৫৫ থেকে ৬০ কোটি রুপি পারিশ্রমিক নেন। এ জন্য ‘মিস্টার পারফেকশনিস্ট’তকমা পেয়েছেন। তার ছবি মুক্তি মানেই তোলপাড়। তাই পারিশ্রমিকের অঙ্কটাও কম নয়। প্রায় সালমানের কাছাকাছি।

এ ক্ষেত্রে সালমান-আমিরের পরই রয়েছেন বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খান। স্বতন্ত্র অভিনয়শৈলী আর অসাধারণ পর্দা-উপস্থিতি দিয়ে বছরের পর বছর ধরে জনপ্রিয়তা ধরে রেখেছেন ‘রইস’ তারকা। তাকে বড় পর্দায় দেখার জন্য মুখিয়ে থাকেন ভক্ত ও দর্শকরা। জনপ্রিয়তার পাল্লায় তাঁর পারিশ্রমিক সমসাময়িক অভিনেতাদের তুলনায় কিছুটা কমই। ‘চেন্নাই এক্সপ্রেস’তারকা ছবিপ্রতি পারিশ্রমিক নেন ৪০ থেকে ৪৫ কোটি রুপি।