ব্রেকিং নিউজঃ

পথে পথে ভোগান্তি আর ঝুঁকি মেনেই নাড়ির টানে ছুটছে মানুষ , সড়ক-মহাসড়কে যানবাহনের ধীরগতি : লঞ্চে অতিরিক্ত যাত্রী  ***  সহায়ক সরকারের একাধিক ফর্মূলার আভাস বিএনপির : শেখ হাসিনার অধিনে নির্বাচনের বিষয়ে একচুলও ছাড় দিতে নারাজ আওয়ামী লীগ  ***  সৌদি আরবে শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেছে, আগামীকাল সৌদিসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে উদযাপন হবে ঈদুল ফিতর *** বাংলাদেশে পবিত্র ঈদুল ফিতরের তারিখ নির্ধারণের লক্ষ্যে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভা রোববার অনুষ্ঠিত হবে  ***  কাবা মসজিদে সন্ত্রাসী হামলা পরিকল্পনা নস্যাৎ করেছে সৌদি আরব  ***  আজীবন নিষিদ্ধ অভিনেতা শাকিব খান: চিত্রপরিচালক গুলজারের পদত্যাগ  ***  ঈদ করতে ট্রাকের ছাদে বাড়ি ফেরা, নিহত ১৬  ***  পাটুরিয়ায় ফেরি পারাপারের অপেক্ষায় ৪ শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক  ***  একসঙ্গে ৩১ কৃত্রিম উপগ্রহ উৎক্ষেপণ করল ভারত  ***  আফগানিস্তানের হেলমান্দে জঙ্গি হামলায় নিহত ৩৪  ***  বাগদাদীকে হত্যা করা হয়েছে প্রায় ১০০ শতাংশ নিশ্চিত : রাশিয়া

বৃষ্টিতে আবার পাহাড়ে আতঙ্ক



অতিবৃষ্টির সঙ্গে পাহাড় ধস ও পাহাড়ি ঢলে বিপর্যস্ত রাঙামাটিতে জনজীবনে স্বস্তি ফেরার আগেই আবার আতঙ্কিত লোকজন। গতকাল বৃহস্পতিবার রোদের দেখা মিললেও দুপুরে ঝুম বৃষ্টি হয়। এরপর ক্ষান্ত দিয়ে রাত থেকে শুরু হয়েছে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি। এতে লোকজন ফের পাহাড় ধসের আতঙ্কে আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে আশ্রয় নিয়েছেন।

 

রাঙামাটিতে বৃষ্টির কারণে গতকাল রাতেই প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাইকিং করে সতর্ক করা হয়। একই সঙ্গে স্থানীয় লোকজনকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়ার তৎপরতা শুরু করে। স্থানীয় লোকজনকে আশ্রয় দিতে ১২টি কেন্দ্র খোলা হয়েছে। শুক্রবার সকাল থেকে বৃষ্টি হচ্ছে। অনেকে নিজ উদ্যোগে আশ্রয় কেন্দ্রে ঠাঁই নিয়েছেন। এসব কেন্দ্রে প্রায় ২ হাজার লোক আশ্রয় নিয়েছেন।

 

সকাল ৯টার দিকে শহরের ভেদভেদী এলাকায় ফের উদ্ধার অভিযান শুরু করেছে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা। সেখানে তিনজন নিখোঁজ থাকার খবর আছে।

 

রাঙামাটি সরকারি কলেজ আশ্রয় কেন্দ্রের দায়িত্বে নিয়োজিত রেড ক্রিসেন্টের জেলা যুব উপ-প্রধান মো. সাইফুল উদ্দিন বলেন, আমরা রাতে মাইকিং শুরু করেছি। লোকজনকে আশ্রয় কেন্দ্র নিয়ে এসেছি।

 

এই কেন্দ্রে আশ্রয় নেওয়া শাবানা খাতুন নামের এক নারী জানান, বৃষ্টি শুরু হওয়ার পর কেবল মনে হচ্ছে, আশপাশের পাহাড় ধসে পড়বে।

 

বেতার কেন্দ্রে আশ্রয় নেওয়া মুজিব নামের এক ব্যক্তি জানান, পাহাড় ধসে তার ঘরে ভেঙে গেছে ও তিনটি ছাগল মারা গেছে।

 

ভেদভেদী ৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রবি মোহন চাকমা বলেন, বৃষ্টির কারণে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।