ব্রেকিং নিউজঃ

Published: 4 months ago

বাহুবলী-টু তে মেতেছে খুলনার তরুণীরা



খুলনা প্রতিনিধি:

ঈদের বাকি আর মাত্র কয়েকটা দিন। এরই মধ্যে পুরোদমে জমে ওঠেছে খুলনার ঈদ বাজার। প্রতিবারের ন্যায় এবারও রঙ-বেরঙের পোশাকের সমারোহ খুলনা নগরীর বিপনী বিতানগুলোতে।

 

বিশেষ করে মেয়েদের জন্য রয়েছে নানা বৈচিত্র্যের বাহারি পোশাক। নানান রঙ, ঢং আর ডিজাইনে তৈরি এসব পোশাক কিনতে তরুণীরা ভিড় জমাচ্ছে দোকানগুলোতে। শেরওয়ানি পার্টের লম্বা কামিজ। নিচে বড় ঘেরের লেহেঙ্গা। আবার দুই পার্টের লং কোটির সঙ্গে বড় ঘেরের স্কাট। এ ধরনের পোশাকের প্রতিই এবারে তরুণীরা আকৃষ্ট হয়েছে বেশি। এ পোশাকটিরই নাম দেয়া হয়েছে বাহুবলী-টু।

 

সরেজমিনে দেখা যায়, বৈরী আবহাওয়াকে উপেক্ষা করে নগরীর মার্কেটগুলোতে ছিল উপচেপড়া ভিড়। সারাদিনের বৃষ্টি দমিয়ে রাখতে পারেনি নগরবাসীর ঈদের কেনাকাটা। খুবই ব্যস্ত সময় পার করছে দোকানীরা। নগরীর নিউ মার্কেট, শপিং কমপ্লেক্স, জলিল সুপার মার্কেট, সেফ এন্ড সেভ, রেলওয়ে মার্কেট, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মার্কেট, আড়ংসহ বিভিন্ন বিপনী বিতানগুলো ঈদকে কেন্দ্র করে বাহারি নাম আর ডিজাইনের পোশাকের পসরা সাজিয়ে রেখেছে দোকানীরা।

 

প্রতি ঈদে মেয়েদের পোশাকের বিশেষ নাম থাকাটা যেনো গত কয়েক বছর ধরে দেশে এক কৃত্রিম ঐতিহ্যে পরিণত হয়েছে। সাধারণত বিদেশি মেগা সিরিয়াল, সিনেমা কিংবা অভিনেতা, অভিনেত্রীর বিভিন্ন চরিত্রের নামেই মেয়েদের পোশাকগুলোর নামকরণ করা হয়। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। এবারও খুলনার মার্কেট জুড়ে রয়েছে বিভিন্ন নামের পোশাক।

এরই ধারাবাহিকতায় এবার তরুণীদের মন কেড়েছে হুররাম ও বাহুবলী-টু নামের পোশাক। অটোমানস রাজ্যের শাসকদের নিয়ে নির্মিত জনপ্রিয় মেগা সিরিয়াল সুলতান সুলেমান এবং বাহুবলী-টু বলিউডি সিনেমা অনুসারেই এসব পোশাকের নামকরণ করা হয়েছে। এসবের পোশাকের দাম রাখা হচ্ছে পাঁচ হাজার থেকে শুরু করে পনেরো হাজার টাকা।

এছাড়া সারারা, নাগিনী টু, কুন্দ ফুলের মালা, ইসকে বাজ, জাওয়ানী জাওয়ানী, লুজাইয়া সুলতানা সোলাইমান, জামাই রাজা, মায়ার বাঁধনসহ বিভিন্ন মেগা সিরিয়ালের নাম অনুসারে এসব পোশাকও বাজারে এসেছে। ফ্লোরটাচ গাউন বা ব্রাইডাল গাউন, ক্যাপ গাউন, নরমাল পার্টি গাউন, লং গাউন বুটিক্স, লং কামিজসহ বিভিন্ন নামের চোখধাঁধানো পোশাকের প্রতিও নজর দিচ্ছে মেয়েরা। এসব পোশাকের দাম ২ হাজার থেকে শুরু করে সাত হাজার টাকা রাখা হচ্ছে।

তবে বাজারে গাউনের পাশাপাশি লেহেঙ্গা ধরনের পোশাকের প্রতি নজর দিচ্ছে মেয়েরা। এগুলোকে সারারা বা বাহুবলী-টু বলা হচ্ছে। তবে বাহুবলি-টু সিনেমায় নায়িকা কোনো গাউন না পরলেও এই গাউনের নাম কেন বাহুবলি গাউন, তা জিজ্ঞেস করা হলে এক দোকানি বলেন, ‘পোশাকের এই নামগুলো সাধারণত রাখা হয় ক্রেতাদের আকৃষ্ট করার জন্য। তবে বিভিন্ন সময়ে এই নামগুলো দেশের বাইরে থেকেই নামকরণ হয়ে আসে।’ তবে ঈদ উপলক্ষে পোশাকের দাম অনেক বেড়েছে বলে ক্রেতারা দাবি করলেও বিক্রেতারা সেটি মানতে নারাজ।

 

খুলনা নর্থ ওয়েস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএ ৪র্থ বর্ষের ছাত্রী স্নিগ্ধা বলেন, ‘আমি দু’পার্টের একটা গাউন কিনেছি। জানি না এটার নাম কি। কেউ বলছে সারারা আবার কেউ বলছে বাহুবলী-টু। এবার অনেক সুন্দর সুন্দর ড্রেসই আসছে মার্কেটে। তবে দাম একটু বেশিই।’

 

খুলনা নিউ মার্কেটের ফ্যান্সি বাহার এর স্বত্বাধিকারী আব্দুল গফুর বলেন, ‘এবারে ঈদ উপলক্ষে আমাদের এখানে মেয়েদের সব ধরনের পোশাকই রাখা হয়েছে। তবে সব থেকে বেশি চলছে বাহুবলী-টু নামের লং গাউন পোশাকগুলো। এসব পোশাকের মান অনুযায়ী দাম নির্ধারণ করা হয়েছে।’

 

বাংলা রিপোর্ট ডটকম/এমএকে