ব্রেকিং নিউজঃ

Published: 6 months ago

রাঙ্গামাটি সদরে ভূমি জোনিং বিষয়ক কর্মশালা



রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি

কৃষি জমিতে আবাসন নির্মাণসহ যাবতীয় স্থাপনা তৈরিতে সর্বসাধারণকে নিরুৎসাহিত এবং জমির সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিত করতে জাতীয় ভূমি জোনিং প্রকল্পের আওতায় রোববার রাঙ্গামাটি সদরে কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আয়োজিত এ কর্মশালায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অরুন কান্তি চাকমা। সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছা. সুমনী আক্তারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন ভাইস চেয়ারম্যান রিতা চাকমা। কর্মশালার শুরুতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অনুষ্ঠানের মূখ্য আলোচক ভূমি মন্ত্রণালয়ের এগ্রিকালচার স্পেসালিস্ট ড. এ এসএম আতিকুল্লাহ।

কর্মশালায় জানানো হয়, জাতীয় ভূমি জোনিং প্রকল্পের আওতায় উপজেলা খসড়া ভূমি জোনিং ম্যাপ যাচাইকরণ বিষয়ক এই কর্মশালা ইতিমধ্যে দেশের বিভিন্ন উপজেলায় করা হয়েছে। কর্মশালার মূল উদ্দেশ্য হলো জমির সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিত করতে মানুষকে সচেতন করা। রাস্তার আশেপাশে অপরিকল্পিতভাবে কেউ যাতে বাড়িঘর নির্মাণ না করেন সে বিষয়ে সবাইকে সচেতন করা। অল্প জমিতে বহুতল ভবন নির্মাণ করার বিষয়ে মানুষকে উদ্বুদ্ধ করা। তিনি বলেন, সরকার চাচ্ছে দেশের সব জমিকে স্যাটেলাইটের আওতায় নিয়ে আসতে। অর্থাৎ এক স্থানে বসেই যাতে দেশের কোথায় কোন জমি আছে, ঐ জমিতে কি চাষ করা হচ্ছে, জমিতে কি করা প্রয়োজন আর কি করা উচিত নয় এসব বিষয় যাতে মুহূর্তে জানা যায় সেই লক্ষ্যকে সামনে রেখে জাতীয় ভূমি জোনিং কার্যক্রম শুরু করা হয়। দেশের সমুদয় জমিকে ৪টি অঞ্চলে ভাগ করে ভূমি জোনিং প্রকল্পের কাজ দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে বলেও তিনি জানান।

কর্মশালায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- পৌর কাউন্সিলর কালায়ন চাকমা, সহকারী ফিসারিজ কর্মকর্তা দিলীপ কুমার বিশ্বাস, ফরেস্ট রেঞ্জ কর্মকর্তা গোলাম কিবরিয়া, কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা পুষ্পিতা চাকমা ও পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা সুইক্রাচিং মার্মা। কর্মশালায় বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ অংশ নেয়।

 

বাংলা রিপোর্ট ডটকম/এমএকে